• শনিবার, ১৮ মে ২০২৪, ১২:২৪ অপরাহ্ন
শিরোনাম
কাপ্তাই উপজেলা পরিষদ নির্বাচন: তাপদাহ উপেক্ষা করে প্রার্থীরা ছুটছেন ভোটার দোয়ারে দোয়ারে  খাগড়াছড়িতে সার্বজনীন পেনশন স্কীম নিবন্ধনে শীর্ষে মাটিরাঙা খাগড়াছড়িতে নাশকতা: বিএনপির তিন নেতা গ্রেপ্তার দীঘিনালায় আনারস প্রতিকের সমর্থনে উঠান বৈঠক গুইমারায় রাতেও চলছে সর্বজনীন পেনশন স্কিম সম্পর্কে অবহিতকরণ সভা কাপ্তাই হ্রদ ভরাট : তদন্ত করে দোষীদের খুঁজতে বলল আদালত মোংলায় ব্র্যাকের উদ্যোগে বাল্যবিয়ে প্রতিরোধে সমন্বয় সভা রামগড় তথ্য অফিসের আয়োজনে মহিলা সমাবেশ মানিকছড়ি তিনটহরী উচ্চ বিদ্যালয়ে অভিভাবক সমাবেশ গোয়ালন্দে বিআইডব্লিউটিসি’র ওজন স্কেলের সড়ক তৈরীতে অনিয়ম কাপ্তাই কর্ণফুলি নদীতে মৎস্য বিভাগের  অভিযানে ৫ হাজার মিটার কারেন্ট জাল এবং ২০ টি রিং জাল জব্দ লামায় জমি নিয়ে বিরোধে জের ধরে ১ জনকে কুপিয়ে খুন, আহত ৭

নিজেদের স্বার্থে দলকে ব্যবহার করছেন বিএনপির সিনিয়ররা

ডেস্ক রিপোর্ট / ৫৯৮ জন পড়েছেন
প্রকাশিত : বৃহস্পতিবার, ১৩ আগস্ট, ২০২০

ডেস্ক রিপোর্ট: খালেদাপন্থী হিসেবে পরিচিত রাজনৈতিক নেতাদের কোণঠাসা করে হাইব্রিড ও ব্যবসায়ীদের দিয়ে পরিচালিত হচ্ছে বিএনপি। টাকার বিনিময়ে দলের ক্ষমতা তুলে দেয়া হয়েছে ব্যবসায়ীদের হাতে। এক সময়ের বিএনপির একাধিক শীর্ষ ও প্রভাবশালী নেতাদের সঙ্গে কথা বলে এমনটাই জানা গেছে।
বিএনপির রাজনীতিতে সিনিয়ররা আজ নিষ্ক্রিয় কেন জানতে চাইলে তারা বলেন, খালেদা জিয়া জেলে থাকা অবস্থায় খালেদাপন্থী হিসেবে পরিচিত বিএনপির নেতাদের কোণঠাসা করে রাখা হয়েছিল এবং তাদের দলে কোনো ভূমিকা ছিল না।

তারা বলেন, এই সময় আমরা দেখেছি অনেক নেতাই খালেদা জিয়ার মুক্তি আন্দোলনে সঠিকভাবে দায়িত্ব পালন করেননি। নির্বাচনের সময়ও এসব নেতৃবৃন্দ সঠিকভাবে কার্যক্রম পরিচালনা করেননি বরং শুরু থেকেই হেরে যাওয়ার জন্য নির্বাচন করেছেন। যার ফলে বিএনপির আজ এই পরিস্থিতি।

বিএনপির একাধিক দায়িত্বশীল সূত্র থেকে জানা গেছে, বিএনপি মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীরসহ স্থায়ী কমিটির সদস্য খন্দকার মোশাররফ হোসেন, ব্যারিস্টার মওদুদ আহমেদ, মির্জা আব্বাস, আমীর খসরু মাহমুদ চৌধুরী, নজরুল ইসলাম খান, ভাইস চেয়ারম্যান আব্দুল আউয়াল মিন্টু, উপদেষ্টা পরিষদের সদস্য এম মোরশেদ খানের মতো সিনিয়র নেতারা আজ নীরব। তারা নিজের স্বার্থে বিএনপিকে ব্যবহার করে। নিজেদের ব্যবসা-বণিজ্য রক্ষায় ব্যস্ত।

নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক এক সময়ের বিএনপির শীর্ষ ও ত্যাগী নেতা বলেন, ব্যবসায়ীদের কাছে আজ আমরা হেরে গেছি। টাকার কাছে দল বিক্রি হয়ে গেছে। বিএনপির রাজনীতি এখন রাজনীতিকদের হাতে নেই। দলের ক্ষমতা তুলে দেয়া হয়েছে ব্যবসায়ীদের হাতে। তারা তাদের নিজেদের স্বার্থে বিএনপিকে ব্যবহার করছে।

তিনি আরো বলেন, ভেবেছিলাম ম্যাডাম কারামুক্ত হয়ে আমাদের সঙ্গে মতবিনিময় করবেন। দলের পরিস্থিতি উন্নয়নে আবারো উদ্যোগী ভূমিকা গ্রহণ করবেন। কিন্তু সেই আশায় একেবারেই গুড়েবালি। আমরা এখন প্রতিনিয়ত হতাশায় নিমজ্জিত হচ্ছি। দলের কার্যক্রমে এখন মনে হয় রাজনীতি ছেড়ে দিই। সূত্র: ডেইলি-বাংলাদেশ ডটকম


আপনার মতামত লিখুন :

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

এ জাতীয় আরো সংবাদ