• শনিবার, ২০ এপ্রিল ২০২৪, ০১:৩১ অপরাহ্ন
শিরোনাম
মহালছড়িতে বৈসাবি ফুটবল টুর্নামেন্টে অংম্রাং ক্লাব চ্যাম্পিয়ন বান্দরবানে জলবায়ু ধর্মঘট করেছে ইয়ুথনেট বান্দরবানে যৌথ অভিযানে গণগ্রেফতার ও হয়রানির প্রতিবাদে খাগড়াছড়িতে পিসিপির বিক্ষোভ মিছিল মানিকছড়িতে সাংগ্রাই উপলক্ষে ঐতিহ্যবাহী বলি খেলা অনুষ্ঠিত সামাজিক অনুষ্ঠানে প্রার্থীদের সবর উপস্থিতি অসাম্প্রদায়িক ও স্মার্ট জনপদ গড়ার অঙ্গীকার তীব্র দাবদাহ বিদ্যুৎ বিভ্রাট পোল্ট্রি খামারে হাঁসফাঁস অবস্থা! খাগড়াছড়ি পার্বত্য চট্টগ্রাম নাগরিক পরিষদের সম্মেলন ২০ এপ্রিল ব্যাংকে হামলা: ১৮ নারীসহ ৫৩ কেএনএফ সন্ত্রাসীর রিমান্ড মঞ্জুর মানিকছড়িতে মোবাইল কোর্টে জরিমানা নতুন বাজার আনন্দ মেলা খেলার মাঠে গোলবার প্রদান করলেন কাপ্তাই সেনা জোন

লংগদুতে একসাথে তিন সন্তানের জন্ম

মোঃ আলমগীর হোসেন ,লংগদু (রাঙ্গামাটি) / ৪৫০ জন পড়েছেন
প্রকাশিত : মঙ্গলবার, ২৭ জুলাই, ২০২১

রাঙামাটির লংগদুতে এক প্রসূতি মা একসাথে তিন সন্তানের জন্ম দিয়েছে। মঙ্গলবার (২৭ জুলাই) সকালে মাইনীমূখের রাবেতা হাসপাতালে এ তিন শিশুর জন্ম হয়। উপজেলার বগাচত্বর ইউনিয়নের গাউসপুর এলাকার পারুল বেগম ও আবু সাইদ দম্পতির ঘর আলো করে জন্ম নিলো এ তিন শিশু। শিশু তিনজন এবং তাদের মা সুস্থ আছেন বলে নিশ্চিত করেছেন হাসপাতালের চিকিৎসক ডা. আবু তালহা।
ডা. আবু তালহা জানান, সোমবার সন্ধ্যায় প্রসব বেদনা নিয়ে প্রসূতি পারুল বেগম হাসপাতালে আসলে আমরা তার আল্ট্রাসনোগ্রাফি করি। তখনই বুঝতে পারি প্রসূতির গর্ভে তিনটি শিশু আছে। মঙ্গলবার সকাল ৭টা ৫০মিনিটে সফলভাবে নরমাল ডেলিভারি করানো হয়েছে। নবজাতক শিশুদের ওজন কম হওয়ায় তাদেরকে খাগড়াছড়ি জেনারেল হাসপাতালে রেফার করা হয়েছে।

এ দিকে একসাথে তিন শিশুর জন্ম হওয়ার খবরে সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে অভিনন্দনের বন্যায় ভাঁসছে তাদের পিতা-মাতা ও হাসপাতাল কর্তৃপক্ষ। বিষয়টি সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে প্রকাশ করেন হাসপাতালের চিকিৎসক ডা.আবু তালহা। তিনি তার ফেসবুক একাউন্টে তিনি লিখেন, ‘আলহামদুলিল্লাহ। জীবনে এই প্রথম রাবেতা হাসপাতালে এক প্রসূতি মায়ের ৩ বাচ্চার নরমাল ডেলিভারি। গত কালকে যখন আল্ট্রাসনোগ্রাফি করি তখনই আমার এক অন্যরকম অনুভূতি হইছিল ৩ বাচ্চা দেখে। আরও আবাক হয়েছি যখন দেখি ৩টি বাচ্চাই ছেলে বাচ্চা। আজ সকাল ৭.৫০ এ তাদের এই বিষন্নতায় ভরা পৃথিবীতে আগমন ঘটে।’
শিশুদের পিতা আবু সাইদ জানান, একসাথে তিন শিশুর জন্ম হওয়ার খবরে আমাদের পুরো পরিবার খুব খুশি। তবে তাদের ওজন কম হওয়ায় কিছুটা দুঃশ্চিন্তায় আছি। বর্তমানে খাগড়াছড়ি জেনারেল হাসপাতালে শিশুদের ভর্তি করা হয়েছে। এখানে চিকিৎসকদের পর্যবেক্ষণে থাকতে হবে কিছুদিন।


আপনার মতামত লিখুন :

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

এ জাতীয় আরো সংবাদ