রাজধানীর পুরান ঢাকার কবি নজরুল সরকারি কলেজে পড়ালেখা করেন দেশের প্রত্যন্ত অঞ্চল থেকে আসা, প্রায় ১৭ হাজার শিক্ষার্থী।ক্যাম্পাস বন্ধ হওয়ায় অনেকেই চলে গিয়েছে গ্রামে। কেউবা আটকে আছে ঢাকায়।

অনেকেরই নেই বাবা-মা অথবা তাদের খরচ চালানোর মতো উপার্জনক্ষম ব্যক্তি। অনেকেই আছেন যারা টিউশনি করে ব্যক্তিগত খরচ চালানোসহ আবার নিয়েছেন সংসারে দায়িত্ব।করোনার ছোবলে থমকে গিয়েছে তাদের জীবন।এমতাবস্থায় তাদের পাশে দাঁড়ানোর আশ্বাস দিয়েছেন কবি নজরুল সরকারি কলেজের অধ্যক্ষ। টেলিফোনে কলেজের অধ্যক্ষ অধ্যাপক আই কে সেলিম উল্লাহ খোন্দকার বলেন, করোনাভাইরাস এখন গোটা দেশে ছড়িয়ে পড়েছে।

আমরা শিক্ষার্থীদের নিয়ে উদ্বিগ্ন। আমার কলেজের অনেক শিক্ষার্থী আছে,যারা ঢাকায় টিউশনি করে ব্যক্তিগত খরচ চালায়।অনেকেই ঢাকায় আটকে গেছে, গ্রামে যেতে পারেনি।শিক্ষার্থীদের যদি কোনো ধরনের কোনো সমস্যা হয় তাহলে তারা নিঃসংকোচে আমাদের জানাতে পারে।আমরা সবসময় তাদের পাশে আছি।বিভিন্ন বিভাগের বিভাগীয় প্রধানদের সাথে আলোচনা করা হয়েছে।অনার্স ও মাস্টার্সের শিক্ষার্থীরা নিজেদের বিভাগের বিভাগীয় প্রধানকে জানাবে।

এছাড়াও ডিগ্রি,ইন্টারমিডিয়েট ও অন্যান্যরা নিবিড় কমিটির সাথে যোগাযোগ করবে।শিক্ষার্থীদের পরিচয় গোপন করে তাদের আর্থিক সহায়তা করা হবে বলে জানান তিনি। শিক্ষার্থীদের ঘরে থাকার বিকল্প নেই জানিয়ে অধ্যক্ষ বলেন, এই দুর্যোগে আগে নিজেকে সুরক্ষিত রাখতে হবে।’তোমরা ঘরে থাক,একান্ত দরকার ছাড়া বাইরে বের হবে না।যারা হতদরিদ্রদের ত্রাণ দিচ্ছ তারাও খুবই নিরাপদে থেকে কাজ করবে। গ্রামে যারা আছ, তারাও বেশ সতর্কে থাকবে। করোনা মোকাবিলায় সবাই সরকারি নির্দেশনা মেনে চলবে৷