• বৃহস্পতিবার, ১৮ জুলাই ২০২৪, ০৪:২৮ অপরাহ্ন
শিরোনাম
খাগড়াছড়িতে পার্বত্য চট্টগ্রাম পাহাড়ি ছাত্র পরিষদের বিক্ষোভ মিছিল বেলকুচি উপজেলা আইন-শৃঙ্খলা কমিটির মাসিক সভা অনুষ্ঠিত শিক্ষার্থীদের শিক্ষা অর্জনের মাধ্যমে নিজকে গড়ে তুলে স্মার্ট বাংলাদেশ গঠনে ভুমিকা রাথতে হবে -বাবুল দাস কাপ্তাই জাতীয় উদ্যানে লজ্জাবতী বানর অবমুক্ত কাপ্তাই বিএসপিআই শিক্ষার্থীদের ওপর ফের হামলা, ৪ জন আহত এম কে বাঘাবাড়ী ঘি কোম্পানির উৎপাদনকারী মো: কামাল উদ্দিনের ১ বছরের কারাদণ্ড কোটা সংস্কারের দাবিতে  কাপ্তাই বিএসপিআই এ শিক্ষার্থীদের বিক্ষোভ মিছিল দিনেদুপুরে কৃষকের বাড়িতে হামলা লুটপাট রাঙামাটি সদর জোনের বিনামূল্যে চিকিৎসা সেবা ও ঔষধ প্রদান আলীকদম সেনা জোন কর্তৃক মানবিক সহায়তা প্রদান পানছড়ি মাদ্রাসায় অব্যবস্থাপনা ও অবৈধ নিয়োগ বাতিলের দাবিতে মানববন্ধন খাগড়াছড়িতে মাদকদ্রব্যের অপব্যবহার ও অবৈধ পাচারবিরোধী আন্তর্জাতিক দিবস উপলক্ষ্যে র‍্যালি ও আলোচনা সভা অনুষ্ঠিত

চরফ্যাসনে যৌতুকের জন্য গৃহবধুকে নির্যাতন

হাসান লিটন, চরফ্যাসন প্রতিনিধি: / ৪৮০ জন পড়েছেন
প্রকাশিত : শনিবার, ৮ জানুয়ারী, ২০২২

চরফ্যাসনের শশীভূষণ থানার চরকলমী ইউনিয়নে স্বামীর দাবীকৃত যৌতুকের টাকার জন্য সুরমা বেগম (২২) নামের এক সন্তানের জননী গৃহবধুকে নির্যাতনের অভিযোগ উঠেছে স্বামী মনজু মাতাব্বর, শ^শুড় ফারুক মাতাব্বর, ও ভাসুর মোঃ নাগর মাতাব্বরের বিরুদ্ধে। গত রোববার গভীর রাতে স্বামী বসত ঘরে গৃহবধুকে হাত-পা বেধে নির্যাতনের পর গুরুতর আহত গৃহবধুকে চিকিৎসা না দিয়ে দু’দিন স্বামীর শয়ন কক্ষে আবদ্ধ করে রাখেন। দু’দিন আবদ্ধ থাকার পর গত মঙ্গলবার প্রতিবেশীদের কাছ থেকে গৃহবধুর স্বজনরা খবর পেয়ে তাকে উদ্ধার করে চরফ্যাসন হাসপাতালে ভর্তি করেন। নির্যাতনের শিকার হয়ে গৃহবধু সুরমা বেগম ৫ দিন চিকিৎসাধীন অবস্থায় হাসপাতালে কাতরালেও খোঁজ নেয়নি স্বামী ও তার পরিবারের সদস্যরা। এঘটনায় মামলা দায়েরের প্রস্তুতি চলছে বলে গৃহবধুর বাবা কালু মাল জানিয়েছেন।
গতকাল শনিবার হাসপাতালে চিকিৎসাধীন গৃহবধু সুরমা জানান,৫ বছর আগে একই ইউনিয়নের মেঘভাষান গ্রামের ফারুক মাতাব্বরের ছেলে মুদি ব্যবসায়ী মনজুর সাথে তার পরিবারিক ভাবে বিয়ে হয়। তাদের ঘরে রাফসান নামের ৩ বছরের একটি ছেলে রয়েছে। বিয়ের পর থেকে তাদের দম্পত্য জিবন সুখের হলেও বছর শেষেই শুরু হয় বিপত্তি। স্বামীর ব্যবসার পরিধিবৃদ্ধির জন্য স্বামী মনজু ও শ^শুর ফারুক মাতাব্বর যৌতুক হিসেবে ৫ লাখ টাকার দাবী করেন। মেয়ের সংসার সুখের জন্য তার বাবা কালু মাল ২ লাখ টাকা আমার স্বামীও শশুরের হাতে তুলে দেন। বছর না ঘুরতেই ফের যৌতুক লোভী স্বামী ও তার পরিবারের সদ্যরা তাদের দাবীকৃত বাকী ৩ লাখ টাকা এনে দিতে বলেন। এনিয়ে তাদের দম্পত্য জিবনে কলহ শুরু হয়।স্বামীর দাবীকৃত যৌতুকের টাকা এনে দিতে না পারায় প্রায় সময় তাকে মারধর করা হতো। গত রেবাবর রাতে ফের বাবার বাড়ি থেকে তার স্বামী মনজুর দাবীকৃত ৩ লাখ টাকা এনে দিতে বলেন। এনিয়ে স্বামী স্ত্রীর মধ্যে ঝগড়া হয়। যৌতুকের ওই টাকা এনে দিতে আমি অস্বীকার করলে স্বামী মনজু মাতাব্বর ও শ^শুড় ফারুক মাতাব্বর ও ভাসুর নাগর মাতাব্বারসহ পরিবারের সদস্যরা আমার হাত-পা বেঁধে নির্যাতন শুরু করেন। স্বামীসহ তার পরিবারের সদস্যদের নির্যাতনে আমি গুরুতর অসুস্থ হয়ে পরলে তারা কোন চিকিৎসা না দিয়ে দু’দিন যাবত স্বামীর শয়ন কক্ষে আবদ্ধ করে রাখেন। দু’দিন পর মঙ্গলবার আমার ভাই ও স্বজনরা খবর পেয়ে আমাকে উদ্ধার করে চরফ্যাসন হাসপাতালে ভর্তি করেন।
ঘটনায়র পরপরই অভিযুক্ত স্বামী মনজু গা-ঢাকা দেয়ায় তার বক্তব্য জানাযায়নি। তবে তার বাবা ফারুক মাতাব্বর পুত্র বধুকে নির্যাতনের বিষয় অস্বীকার জানান, আমার ছেলেকে ফাঁসাতে এমন নাটক করেছে পুত্রবধু।
শশীভূষণ থানার ওসি মিজানুর রহমান পাটোয়ারী জানান, এঘটনায় কোন অভিযোগ পাইনি। অভিযোগ পেলে বিষয়টি খতিয়ে দেখা হবে।


আপনার মতামত লিখুন :

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

এ জাতীয় আরো সংবাদ