Header Border

ঢাকা, মঙ্গলবার, ২৬শে মে, ২০২০ ইং | ১২ই জ্যৈষ্ঠ, ১৪২৭ বঙ্গাব্দ (গ্রীষ্মকাল) ২৭°সে
শিরোনাম :
ঘোরাঘাটে পানি নিষ্কাসনকে কেন্দ্র করে প্রতিবেশীর হাতে নিহত ১ দি চেঙ্গী চাইল্ড হোম সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের নির্মাণ কাজের শুভ উদ্বোধন কাপ্তাই জল বিদ্যুৎ কেন্দ্রের প্রবেশ মুখ স্মরন কালের লকডাউন মাদারীপুরে মোটরসাইকেল দূর্ঘটনায় নিহত ১ ঈদে ভবঘুরে পাগলদের মাঝে খাবার বিতরণ করলেন জনসেবা যুব কল্যাণে আমরা চোলাই মদসহ মাগুরায় দুই মাদক বিক্রেতা গ্রেফতার পানছড়িতে ঈদ সামগ্রী বিতরণ করলো জুনাব আলী ফাউন্ডেশন রাঙামাটিবাসীকে কাউখালী উপজেলা ছাত্রলীগের সাধারণ সম্পাদক শাহীন আলমের ঈদ শুভেচ্ছা রামগড় উপজেলার সর্বস্তরের জনগণের প্রতি ঈদ শুভেচ্ছা জানান করেন উপজেলা চেয়ারম্যান বিশ্ব কুমার কার্বারী  ক্রান্তিলগ্নে ঈদ খাদ্য সামগ্রী দিলেন বেতবুনিয়া ইউনিয়ন ৩নং ওয়ার্ড শাখা ছাত্রলীগ

লামায় ত্রিপুরা পল্লীতে চূলার আগুনে ভষ্মীভূত ৭ বসতবাড়ি

দৈনিক পার্বত্য কন্ঠ

 

মোহাম্মদ রফিকুল ইসলাম,নিজস্ব সংবাদদাতা, লামাঃ বান্দরবানের লামায় চূলার আগুনে ৭টি বসতবাড়ি ভস্মিভূত হয়েছে। বুধবার (১৮ মার্চ) বেলা সাড়ে ১১টায় উপজেলার গজালিয়া ইউনিয়নের ৩নং ওয়ার্ডের আকিরাম ত্রিপুরা পাড়াতে এই অগ্নিকান্ডের ঘটনা ঘটে। আকিরাম পাড়া এলাকার সাবেক মেম্বার নেলসন ম্যান্ডেলা জানিয়েছেন, সোনা চন্দ্র ত্রিপুরার বাড়ির চূলা হতে আগুনের সূত্রপাত হয়েছে।

আগুন নিয়ন্ত্রণে সেনাবাহিনী, লামা ফায়ার সার্ভিস, গজালিয়ার আনসার-ভিডিপি সদস্য, পুলিশ ও স্থানীয় জনগণ অংশ নেয়। সবাই একসাথে দেড় ঘন্টা চেষ্টা চালিয়ে আগুন নিয়ন্ত্রণে আনে।

প্রাথমিকভাবে আগুনে পুড়ে যাওয়া ৭টি বসতবাড়িতে ১৫ লক্ষ টাকার অধিক ক্ষতি হয়েছে বলে জানান, গজালিয়া ইউপি চেয়ারম্যান বাথোয়াইচিং মার্মা। তিনি আরো বলেন, ইউনিয়ন পরিষদের পক্ষ থেকে বিকেলে ক্ষতিগ্রস্থ প্রতিটি পরিবারকে ৩টি কম্বল, ২০ কেজি চাল ও পেয়াজ, রসুন, তেল সহ অন্যান্য গৃহস্থলী সরঞ্জাম দেয়া হবে। এই সহায়তা অব্যাহত থাকবে।

লামা ফায়ার সার্ভিসের টিম লিডার মোজাম্মেল হক বলেন, খবর পাওয়া মাত্র আমরা প্রয়োজনীয় জিনিসপত্র নিয়ে আগুন নিয়ন্ত্রণে ছুঁটে আসি। দেড় ঘন্টা চেষ্টা করে আগুন নিয়ন্ত্রণ করা হয়। প্রতিটি ঘরের সব কিছু পুড়ে ছাই হয়ে গেছে। কোন লোকজন হতাহত হয়নি। আমাদের একজন টিম লিডার আগুন নেভাতে গিয়ে আঘাত পেয়েছেন।

স্থানীয় ওয়ার্ড মেম্বার ইলিশায় ত্রিপুরা বলেন, সোনা চন্দ্র ত্রিপুরার বাড়িতে বয়স্ক কেউ ছিল না। সবাই জুমে কাজ করতে গিয়েছিল। বাড়িতে ছোট বাচ্চারা চূলায় আগুন নিয়ে কাজ করতে গিয়ে আগুনের সূত্রপাত হয়। মূহুর্তে আগুন ছড়িয়ে পড়ে। পুড়ে যাওয়া ৭টি বসতবাড়িতে ৯টি পরিবারের কোন কিছু রক্ষা করা যায়নি। এই পাড়াটিতে ১৮২াট ত্রিপুরা পরিবার বসবাস করে। এইটি বান্দরবান জেলার সবচেয়ে বড় উপজাতি পাড়া। আগুন নিয়ন্ত্রণে আনতে না পারলে পুরো পাড়াটি পুড়ে যেত।

ক্ষতিগ্রস্ত লোকজন ও স্থানীয়রা জানান, আগুন লাগার সঙ্গে সঙ্গেই মুহুর্তেই আশেপাশের বাড়িঘরে ছড়িয়ে পড়ে। এতে নিমিষেই ৭টি বসতবাড়ি পুড়ে ছাই হয়ে যায়।

ঘটনাস্থল পরিদর্শন করেন, লামা উপজেলা চেয়ারম্যান মোস্তফা জামাল। তিনি বলেন, সমবেদনা জানানোর ভাষা আমাদের জানা নেই। তাদের প্রয়োজনীয় সহযোগিতা করা হবে।

শেয়ার করুন

আপনার মতামত লিখুন :

আরও পড়ুন

দি চেঙ্গী চাইল্ড হোম সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের নির্মাণ কাজের শুভ উদ্বোধন
কাপ্তাই জল বিদ্যুৎ কেন্দ্রের প্রবেশ মুখ স্মরন কালের লকডাউন
পানছড়িতে ঈদ সামগ্রী বিতরণ করলো জুনাব আলী ফাউন্ডেশন
রাঙামাটিবাসীকে কাউখালী উপজেলা ছাত্রলীগের সাধারণ সম্পাদক শাহীন আলমের ঈদ শুভেচ্ছা
রামগড় উপজেলার সর্বস্তরের জনগণের প্রতি ঈদ শুভেচ্ছা জানান করেন উপজেলা চেয়ারম্যান বিশ্ব কুমার কার্বারী 
ক্রান্তিলগ্নে ঈদ খাদ্য সামগ্রী দিলেন বেতবুনিয়া ইউনিয়ন ৩নং ওয়ার্ড শাখা ছাত্রলীগ

আরও খবর

সম্পাদক  প্রকাশক : এম শাহীন আলম।