• শুক্রবার, ২৪ মে ২০২৪, ০৪:২১ অপরাহ্ন
শিরোনাম
রামগড় ৪৩ বিজিবির অভিযানে ভারতীয় মদ জব্দ রামগড় থানার অফিসার ইনচার্জ দেব প্রিয় দাশ জেলার শ্রেষ্ঠ ওসি নির্বাচিত পানছড়িতে গুচ্ছগ্রামের গম না দেওয়াকে কেন্দ্র করে মারামারি, আহত ৩ কুকি চিনের বিরুদ্ধে চলমান অভিযান অব্যাহত রাখাসহ পাহাড়ের বিভিন্ন ইস্যু নিয়ে পিসিএনপি’র সংবাদ সম্মেলন হালদার উজানে বালু উত্তোলনের দায়ে মানিকছড়িতে একজনকে জরিমানা সাজেকে বিনামূল্যে চিকিৎসা সেবা ও ঔষুধ বিতরণ করেছে সেনাবাহিনী সীমান্ত সড়কের রাস্তার পাশে পড়েছিল মরদেহ,উদ্ধার করলো পুলিশ নড়াইলে ইয়াবা ও গাঁজাসহ একজন গ্রেফতার মানিকছড়িতে তৃণমূল উন্নয়ন সংস্থার আস্থা প্রকল্পের সভা অনুষ্টিত কাপ্তাই থানা পুলিশ এর পৃথক  অভিযানে চোলাই মদ ও গাজা সহ আটক : ৩ বুদ্ধ পূর্ণিমা উপলক্ষে পানছড়িতে বিশ্ব শান্তি কামনায় মঙ্গল শোভাযাত্রা অনুষ্ঠিত হয়েছে আজ শরিকদের সঙ্গে বসছেন প্রধানমন্ত্রী

কেজিতে ১০ টাকা কমেছে আলুর দাম

নিজস্ব প্রতিবেদক: / ১০৯৯ জন পড়েছেন
প্রকাশিত : শনিবার, ২৪ অক্টোবর, ২০২০

 হঠাৎ বেড়ে যাওয়া আলুর দাম এখন কমতে শুরু করেছে। তিন দিনের ব্যবধানে রাজধানীর পাইকারি বাজারে এ পণ্যের দাম কেজিতে ৮ থেকে ১০ টাকা কমে এখন বিক্রি হচ্ছে ৩০ থেকে ৩৫ টাকায়। তবে খুচরা বাজারে আলু বিক্রি হচ্ছে ৪৪ থেকে ৪৫ টাকায়।

আজ শনিবার (২৪) অক্টোবর) রাজধানীর পাইকারি ও খুচরা বাজারে এমন চিত্র দেখা গেছে।

আলু ব্যবসায়ী ও বাজার সংশ্লিষ্টরা বলছেন, সরবরাহ কম থাকায় মাসের শুরুর দিকে হঠাৎ আলুর দাম দ্বিগুণ বেড়ে ৬০ টাকায় ওঠে। পরে সরকারের সংশ্লিষ্ট বিভাগ আলুর দাম নিয়ন্ত্রণ করতে খুচরা বাজারে সর্বোচ্চ ৩০ টাকা বেঁধে দেয়। তবে তা কার্যকর করতে পারেনি। সর্বশেষ গত মঙ্গলবার (২০ অক্টোবর) আবারো ব্যবসায়ীদের সঙ্গে বসে খুচরা পর্যায়ে আলুর দাম পুনর্নির্ধারণ করে সরকার। এবার দাম নির্ধারণ করা হয় ৩৫ টাকা। এরপর থেকে বাজারে আলুর সরবরাহ বাড়তে থাকায় দামও কমছে। তবে এখন পর্যন্ত খুচরা বাজারে সরকারের বেঁধে দেওয়া দামের চেয়ে ৭ থেকে ৮ টাকা বেশি দরে বিক্রি হচ্ছে।

পাইকারি ব্যবসায়ীরা বলছেন, ৩-৪ দিনের ব্যবধানে আলুর দাম কেজিতে ৮ থেকে ১০ টাকা কমেছে। এখন সরবরাহ ভালো, এটা অব্যাহত থাকলে দাম আরও কমে যাবে।

রাজধানী কারওয়ান বাজারের পাইকারি আলু ব্যবসায়ী মো. হাফিজ গণমাধ্যমকে বলেন, আজকে বাজারের একের মালের (সবচেয়ে ভালো মান) আলু প্রতি কেজি বিক্রি হচ্ছে ৩৫ টাকা। এছাড়া মান অনুযায়ী ৩০ থেকে ৩৪ টাকায় বিক্রি হচ্ছে। কোল্ড স্টোরেজগুলো এখন আলু ছাড়ছে। গতকাল থেকে বাজারে সরবরাহ বেড়েছে এটা অব্যাহত থাকলে সামনে দাম আরও কমে যাবে।

মুগদা কাঁচাবাজারে আসা আবুল বাশার নামের এক ক্রেতা বলেন, আলু প্রতিদিনই লাগে। প্রতিবছরই এই সময় আলুর দাম একটু বাড়ে কিন্তু ৬০ টাকা জীবনে কখনও দেখিনি, শুনিওনি। গত পরশু খবরে দেখলাম, সরকার আলুর দাম পুনর্নির্ধারণ করে সর্বোচ্চ খুচরা মূল্য ৩৫ টাকা ঠিক করে দিয়েছে। কিন্তু আজকেও বাজারে এক কেজি আলু কিনলাম ৪৪ টাকা দিয়ে। ব্যবসায়ীরা তাদের ইচ্ছেমতো মুনাফা লুটে, যার বলি সবসময় হয় ক্রেতারা।


আপনার মতামত লিখুন :

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

এ জাতীয় আরো সংবাদ