• রবিবার, ২১ এপ্রিল ২০২৪, ০৫:০০ পূর্বাহ্ন
শিরোনাম
শান্তি চুক্তির ৬৫টি ধারা সম্পূর্ণভাবে বাস্তবায়িত হয়েছে- জাতিসংঘে বাংলাদেশ শান্তিচুক্তির অগ্রগতি জাতিসংঘে তুলে ধরল বাংলাদেশ পার্বত্য চট্টগ্রাম নাগরিক পরিষদের খাগড়াছড়ি জেলা সম্মেলন অনুষ্ঠিত- লোকমান সভাপতি, মাসুম রানা সম্পাদক কেএনএফ’র সন্ত্রাসী তৎপরতার প্রতিবাদ জানিয়েছে ১১টি ক্ষুদ্র নৃ-গোষ্ঠী রুমায় তুমুল গোলাগুলি আতঙ্ক, হতাহতের শঙ্কা বর্ণাঢ্য আয়োজনে পার্বত্য চট্টগ্রাম নাগরিক পরিষদের খাগড়াছড়ি জেলা সম্মেলন অনুষ্ঠিত মহালছড়িতে বৈসাবি ফুটবল টুর্নামেন্টে অংম্রাং ক্লাব চ্যাম্পিয়ন বান্দরবানে জলবায়ু ধর্মঘট করেছে ইয়ুথনেট বান্দরবানে যৌথ অভিযানে গণগ্রেফতার ও হয়রানির প্রতিবাদে খাগড়াছড়িতে পিসিপির বিক্ষোভ মিছিল মানিকছড়িতে সাংগ্রাই উপলক্ষে ঐতিহ্যবাহী বলি খেলা অনুষ্ঠিত

গুইমারায় মোটরসাইকেল ড্রাইভারকে অপহরণ, ২লক্ষ টাকা মুক্তিপণ দাবী

খাগড়াছড়ি প্রতিনিধি / ৪৮৩ জন পড়েছেন
প্রকাশিত : রবিবার, ২০ সেপ্টেম্বর, ২০২০

খাগড়াছড়ির গুইমারা উপজেলার হাতিমুড়ায় আরিফ হোসেন(১৮) নামে এক মোটরসাইকেল চালককে অপহরণের অভিযোগ পাওয়া গেছে।

শুক্রকার(১৮ সেপ্টেম্বর) রাত সাড়ে ১০টার দিকে ভাড়ার কথা বলে তাকে অপহরণ করা হয়।

অপহৃতের পরিবার জানায়, একই এলাকার নুর হোসেন কোম্পানীর মেজো ছেলে ইয়াবা পাচার ও ডাকাতি মামলার আসামী ইমরান হোসেন অপহরণ করে।

অপহৃত আরিফ হোসেন হাতিমুড়া এলাকার মোস্তফা মিয়া’র ছোট ছেলে।

হাতিমুড়ার পুলিশ ফাঁড়ির আইসি মকবুল হোসেন বলেন, বিষয়টি তিনি তার পরিবার ও স্থানীয় লোকজনের মুখে শুনে ঊর্ধ্বতন কর্মকর্তাকে অবগত করা হয়েছে।

অপহরণের আগে গতকাল দুপুর দেড়টায় অপহরণকারী ইমরান হোসেন ভাড়ায় আরিফ হোসেনের মোটরসাইকেল নিয়ে গুইমারায় যায়। রাতে ইমরান আরিফের মোটরসাইকেল ভাড়া নিয়ে চট্টগ্রাম মহাসড়কের দিকে যায়। পরে চট্টগ্রাম থেকে আসা অপরিচিত আরো তিনজন লোকসহ হাতিমুড়া এলাকায় ঘুরাঘুরি করতে দেখা যায়। রাতেই একটি সিএনজি রিজার্ভ করে তারা চলে গেছে বলে স্থানীয় সূত্রে জানা যায়।

অপহরণের পর ইমরান হোসেন অপহৃত আরিফের মোবাইল থেকে তার বাসায় কল দিয়ে ২ লক্ষ টাকা মুক্তিপণ দাবী করে এবং টাকা না পেলে তাকে মেরে ফেলার হুমকি দেয় বলে অপহৃত’র পরিবারের সদস্যরা জানায়।

সে সাথে আরিফ বড়দিঘীর পাড় জিম্মি অবস্থায় আছে বলে মোবাইলে জানায় এবং বিকাশে টাকা পাঠাতে বলে।

পরে অপহরণকারীর বড় ভাই জাহিদ, ইমরানের সাথে যোগাযোগ করে, অপহৃত আরিফকে উদ্ধার করার জন্য তার পিতা মোস্তফা মিয়া ও মামা আকবর আলী’কে নিয়ে চট্টগ্রাম বড়দিঘীর পাড়ের উদ্দেশ্যে রওনা দেয়।

গুইমারা থানার ওসি মো: মিজানুর রহমান বলেন, অপহরণের বিষয়ে থানায় কোন অভিযোগ আসেনি। অভিযোগ পেলে তদন্ত সাপেক্ষে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা নেয়া হবে।


আপনার মতামত লিখুন :

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

এ জাতীয় আরো সংবাদ