• মঙ্গলবার, ২৫ জুন ২০২৪, ০৫:৪৯ অপরাহ্ন
শিরোনাম
কাপ্তাই ইফা’তে বিদায় -বরণ সংবর্ধনা অনুুষ্ঠিত  বিলাইছড়িতে বর্ণিল আয়োজনে আওয়ামী লীগের প্রতিষ্ঠাবার্ষিকী পালিত ফকিরহাটে বাসের সাথে মটরসাইকেলের সংঘর্ষ, শিশুসহ নিহত-২  আওয়ামী লীগের ৭৫ তম জয়ন্তি উদযাপন উপলক্ষে কাপ্তাইয়ে আলোচনা সভা অনুষ্ঠিত খাগড়াছড়িতে পার্বত্য চট্টগ্রাম এলাকায় আর্থ-সামাজিক উন্নয়নে ইক্ষু, সাথী ফসল ও গুড় উৎপাদন শীর্ষক কর্মশালা খাগড়াছড়িতে পুলিশ নারী কল্যাণ সমিতি (পুনাক) বিক্রয় কেন্দ্রের শুভ উদ্বোধন অনুষ্ঠিত খাগড়াছড়িতে বাংলাদেশ আওয়ামী লীগের ৭৫তম প্রতিষ্ঠাবার্ষিকী পালিত লামা হাসপাতালে এমএসআর মালামাল সরবরাহে ব্যাপক অনিয়ম রাজস্থলীতে আওয়ামী লীগের ৭৫ তম প্রতিষ্ঠাবার্ষিকী পালিত আলীকদম মারাইংতং পাহাড়ে বেড়াতে এসে মেডিকেল ছাত্রের মৃত্যু পানছড়িতে মানবসেবা ও শিক্ষা কল্যাণ ফাউন্ডেশন এর দ্বিতীয় তম প্রতিষ্ঠা বার্ষিকী ও কৃতি শিক্ষার্থী ২০২৪ অনুষ্ঠিত মেহেদীর রং না মুছতেই বাবার বাড়িতে মেয়ের আত্মহত্যা 

নিত্যপণ্য : স্বস্তি ফেরেনি অজুহাতের বাজারে

মাসুদ রানা, স্টাফ রিপোর্টার / ৭৯৬ জন পড়েছেন
প্রকাশিত : শুক্রবার, ১৩ অক্টোবর, ২০২৩

নিত্যপণ্যের বাজার আবারও অস্থির হয়ে উঠছে। ডিম, মুরগি, সবজিসহ বাজারে সব পণ্যের দাম বেশি। নিত্যপণ্যের জন্য সরকারের বেঁধে দেওয়া দামে বাজারে মিলছে না কোনো পণ্যই। সরবরাহ কম থাকার সেই পুরোনো অজুহাত দিচ্ছেন বিক্রেতারা।

গত কয়েক সপ্তাহ স্থির থাকার পর আবারও চড়ছে ডিমের বাজার। এলাকাভেদে প্রতি ডজন ডিম কিনতে গুনতে হচ্ছে ১৫৫ থেকে ১৬০ টাকা। মুরগির বাজারেও একই অবস্থা।

সরকারি হিসাবে প্রতি বছরই বাড়ছে ডিমের উৎপাদন। এখন জনপ্রতি বাৎসরিক প্রাপ্যতা ১৩৫টি। তবে বাজারে গেলে এই তথ্যের সত্যতা মেলা ভার। গত সপ্তাহেই প্রতি ডজন ডিম বিক্রি হয়েছে ১৪৫ টাকায়। শুক্রবার সেই ডিম বিক্রি হচ্ছে ১০ থেকে ১৫ টাকা বেশি দামে। এ অবস্থার জন্য উৎপাদক প্রতিষ্ঠানকে দুষছেন খুচরা বিক্রেতারা।

রাজধানীর কারওয়ান বাজারের এক ডিম ব্যবসায়ী বলেন, ‘যদি মেইন গোডাউনে হাত দেন তাহলে এটার দাম কমে যেতে পারে। ওরা (উৎপাদক) তো ইচ্ছা করে দাম কমাচ্ছে না। আমাদের খামাখা হয়রানি করছেন, জরিমানা করছেন। কেন? কারণটা কি?’

মুরগির দামও গত সপ্তাহের তুলনায় কেজিতে বেড়েছে ১০ টাকা। বাজারে প্রতি কেজি ব্রয়লার মুরগি বিক্রি হচ্ছে ২১০ টাকা আর সোনালী মুরগির কেজি এখন ৩৫০ টাকা।

বৃষ্টির অজুহাতে কেজিতে গড়ে ৪০ টাকা বেড়েছে সবজির দাম। ঝাঁজ বেড়েছে পেঁয়াজেরও। সরকারি দাম তো দূরের কথা, আরও এক দফা বেড়ে দেশি পেঁয়াজ বিক্রি হচ্ছে ১০০ টাকায় আর আমদানি করা পেঁয়াজ কিনতে গুনতে হচ্ছে কেজিতে ৮০ টাকার বেশি। আলুর কেজিও ৪৫ টাকা।

সাপ্তাহিক বাজার করতে আসা এক ক্রেতা বলেন, ‘সবকিছুর দামই এখন বেশি। শুধু ডিম বললে তো হবে না। আলুর দাম বেড়ে গেছে, পেঁয়াজের দামও বেড়ে গেছে। সরকার তো দেখতে পারে যে বাজার কি আসলেই নিয়ন্ত্রণে আছে কিনা।’

এদিকে, বৃষ্টির অজুহাতে সবজির দামও বেড়েছে কেজিতে ৪০ টাকার বেশি। বেগুন বিক্রি হচ্ছে ১২০ থেকে ১৬০ টাকায় কেজি। আর প্রতিকেজি কাঁচামরিচের দাম ২০০ টাকা।

ভোক্তা অধিকারের অভিযান চললেও এর পরোয়া কেউ করছেন না। সংস্থাটির সহকারী পরিচালক সোহেল চাকমা বলেন, ‘আমাদের অভিযান কিন্তু এখনও অব্যাহত আছে। নিত্যপণ্যের বিষয়ে অব্যাহত তো আছেই পাশাপাশি আমাদের ডিজির যে নির্দেশনা সে অনুযায়ী আমরা কাজ করছি।’

বাজার তদারকির এ অভিযান চলমান থাকবে বলেও জানিয়েছে সংস্থাটি।


আপনার মতামত লিখুন :

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

এ জাতীয় আরো সংবাদ