• শনিবার, ২০ জুলাই ২০২৪, ০৮:৫১ পূর্বাহ্ন
শিরোনাম
খাগড়াছড়িতে পার্বত্য চট্টগ্রাম পাহাড়ি ছাত্র পরিষদের বিক্ষোভ মিছিল বেলকুচি উপজেলা আইন-শৃঙ্খলা কমিটির মাসিক সভা অনুষ্ঠিত শিক্ষার্থীদের শিক্ষা অর্জনের মাধ্যমে নিজকে গড়ে তুলে স্মার্ট বাংলাদেশ গঠনে ভুমিকা রাথতে হবে -বাবুল দাস কাপ্তাই জাতীয় উদ্যানে লজ্জাবতী বানর অবমুক্ত কাপ্তাই বিএসপিআই শিক্ষার্থীদের ওপর ফের হামলা, ৪ জন আহত এম কে বাঘাবাড়ী ঘি কোম্পানির উৎপাদনকারী মো: কামাল উদ্দিনের ১ বছরের কারাদণ্ড কোটা সংস্কারের দাবিতে  কাপ্তাই বিএসপিআই এ শিক্ষার্থীদের বিক্ষোভ মিছিল দিনেদুপুরে কৃষকের বাড়িতে হামলা লুটপাট রাঙামাটি সদর জোনের বিনামূল্যে চিকিৎসা সেবা ও ঔষধ প্রদান আলীকদম সেনা জোন কর্তৃক মানবিক সহায়তা প্রদান পানছড়ি মাদ্রাসায় অব্যবস্থাপনা ও অবৈধ নিয়োগ বাতিলের দাবিতে মানববন্ধন খাগড়াছড়িতে মাদকদ্রব্যের অপব্যবহার ও অবৈধ পাচারবিরোধী আন্তর্জাতিক দিবস উপলক্ষ্যে র‍্যালি ও আলোচনা সভা অনুষ্ঠিত

আইন শৃঙ্খলা বাহিনীর পরিচয়ে বাড়ি থেকে তুলে নিয়ে যায় হদিস নেই গিয়াস উদ্দিনের !

মোহাম্মদ রফিকুল ইসলাম, নিজস্ব সংবাদদাতা, লামা / ১৯৫ জন পড়েছেন
প্রকাশিত : রবিবার, ২৩ জানুয়ারী, ২০২২

বান্দরবানের লামা থেকে গিয়াস উদ্দিন (৫০) নামে এক লোককে আইন শৃঙ্খলা বাহিনীর পরিচয়ে গভীর রাতে বাড়ি থেকে তুলে নিয়ে গেছে ‍দুর্বৃত্তরা। আজ শুক্রবার (২১ জানুয়ারী ২০২২ইং) রাত ৪টায় লামা পৌরসভার ৭নং ওয়ার্ড বড় নুনারবিল পাড়াস্থ নাজমা বেগমের ভাড়া বাসায় এই ঘটনা ঘটে।

নিখোঁজ গিয়াস উদ্দিন কক্সবাজার জেলা পেকুয়া উপজেলার বার-বাকিয়া ইউনিয়নের ২নং ওয়ার্ড আবাদিঘোনা এলাকার নন্না মিয়ার ছেলে। সে লামা বাজারে মাছ-সবজির ব্যবসা করত ও বড় নুনারবিল এলাকায় পরিবার পরিজন নিয়ে ভাড়া থাকত।

নিখোঁজের বিষয়ে গিয়াস উদ্দিনের পরিবার অনেক খোঁজাখুজি করে কোন হদিস না পেয়ে লামা থানার সহযোগিতা কামনা করে। নিখোঁজ গিয়াস উদ্দিনের স্ত্রী জুবাইদা বেগম (৩৫) বলেন, আমরা লামা পৌরসভার বড় নুনারবিল পাড়ায় নাজমা বেগমের বাড়িতে ভাড়া থাকি। আজ শুক্রবার ভোররাত অনুমান ৪টায় আমার স্বামীকে ঘুম থেকে কয়েকজন লোক ডেকে বলে যে, বাহিরে আসার জন্য। আমার স্বামী বাসা থেকে বের হতে না চাহিলে বলে যে, আমরা লামা থানা থেকে এসেছি। পরবর্তীতে আমার স্বামী প্রচন্ড শীতে কাপড় পড়ে বের হলে তাকে হ্যান্ডকাপ পরিয়ে তাদের সঙ্গে করে নিয়ে যায়। আমার স্বামীর সাথে থাকা মোবাইল ফোনটিও বন্ধ করে দেয়। যাহার ফোন নং- ০১৮৭১৭২৪৫৬৪, ০১৮১০২৪৫৬১৮। তারা আমাকে সকাল ১০টায় লামা থানায় যোগাযোগ করার জন্য বলে। আমি সকাল ৭টা, ৮টা এবং ১০টার সময় থানায় যোগাযোগ করি।

যোগাযোগ করে দেখা যায় যে, লামা থানায় আমার স্বামীকে আনা হয়নি। আমি আমার আগের বাড়ি পেকুয়া ও চকরিয়া থানায় যোগাযোগ করি। বিভিন্ন জায়গায় যোগাযোগ করে কোথাও খোঁজে না পাওয়ায় আমরা চিন্তিত হয়ে পড়েছি।

নিখোঁজের বর্ণনাঃ উচ্চতা অনুমান ৫ ফুট ২ ইঞ্চি, মুখমন্ডল- হালকা গোলাকার, গায়ের রং- শ্যামলা, পরণে ছিল- গেঞ্জি, শীতের জেকেট ও প্যান্ট, চুলের রং কালো, সে চট্টগ্রামের আঞ্চলিক ভাষায় কথা বলে। শারীরিক গঠন-চিকন।

এই বিষয়ে কথা হয় লামা থানা পুলিশ পরিদর্শক (তদন্ত) শিবেন বিশ্বাসের সাখে। তিনি বলেন, লামা থানা পুলিশ তার বাসায় যায়নি, বিষয়টি আমরা জানিনা। নিখোঁজ গিয়াস উদ্দিনের পরিবারের লোকজন তার খোঁজে থানায় আসে। তারা ডায়েরি করতে চাইলে তাদের লিখে নিয়ে আসতে বলা হয়েছে।


আপনার মতামত লিখুন :

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

এ জাতীয় আরো সংবাদ