সোমবার, ৩০ জানুয়ারী ২০২৩, ১২:৪০ পূর্বাহ্ন
বিজ্ঞপ্তিঃ

হ্যাঁ, এলাকা আমার, খবর আমার, পত্রিকা আমার। সাফল্যের ২ বছর শেষে ৩ তম বছরে দৈনিক পার্বত্য কন্ঠ। নতুন বাংলাদেশ গড়ার প্রত্যয়ে সবচেয়ে বেশি স্থানীয় সংস্করন নিয়ে "দৈনিক পার্বত্য কন্ঠ" বিশ্লেষন আমাদের, সিদ্ধান্ত আপনার। দৈনিক পার্বত্য কন্ঠ পত্রিকায় শুন্য পদে সংবাদদাতা নিয়োগ চলছে। আপনার এলাকায় শুন্য পদ রয়েছে কিনা জানতে কল করুনঃ 01647627526 অথবা ইনবক্স করুন আমাদের পেইজে। ভিজিট করুনঃ parbattakantho.com দৈনিক পার্বত্য কন্ঠ। সত্য প্রকাশে সাহসী যোদ্ধা আমরা নতুন বাংলাদেশ গড়বো

লামায় পৌর কাউন্সিলরের বিরুদ্ধে নারী ও শিশু নির্যাতন ট্রাইব্যুনালে মামলা

মোহাম্মদ রফিকুল ইসলাম, নিজস্ব সংবাদদাতা, লামা
  • প্রকাশিত : রবিবার, ১৩ ফেব্রুয়ারী, ২০২২
  • ১৫৯ জন পড়েছেন

বান্দরবানের লামা পৌরসভার ৮নং ওয়ার্ড কাউন্সিলরের বিরুদ্ধে নারী ও শিশু নির্যাতন দমন ট্রাইব্যুনালে অভিযোগ করেছেন স্থানীয় এক দরিদ্র নারী। অভিযোগে ওই নারী উল্লেখ করেন, ওয়ার্ড কাউন্সিলরসহ তার বোন ভাতিজারা দলবদ্ধভাবে হামলা করে, অভিযোগকারী ও তার বিধবা মেয়েকে বেদম প্রহার করে। এর আগে তার মেয়েকে রাস্তা-ঘাটে বিভিন্ন অশালীন প্রস্তাব দেয়। এতে রাজি না হওয়ায় বিধবা মেয়ের চরিত্র হননে নানারুপ আপত্তিকর কথাবর্তা রটায়।

অভিযোগে উল্লেখ করা হয়, গত ১৮ জানুয়ারি/২২ বিকেল ৪টায় বাড়িতে গিয়ে চরিত্রহীনতার অপবাদ দিতে থাকে। একই সময় অভিযুক্ত ব্যক্তি বিধবা নারীর সাথে যৌন কামনা চরিতার্থ করার উদ্দেশ্যে অশালীন অঙ্গভঙ্গি করে। ওই সময় শোরচিৎকার করে কোনোমতে রেহাই পায় ভিকটিম। এসময় ক্ষুদ্ধ কাউন্সিলর তার পরিবারের বোন-ভাতিজাকে ডেকে ভিকটিমকে চরিত্রহীনতার মিথ্যা অপবাদ দিয়ে বেদম প্রহার করায়। এতে ভিকটিম বিধবা নারী শরীরের স্পর্শকাতর অঙ্গসহ রক্তাক্ত জখম হয় বলে নারী-শিশু ট্রাইব্যুনালে করা অভিযোগে উল্লেখ করেন। ঘটনার পর ভিকটিমকে প্রথমে লামা সরকারি স্বাস্থ্য কমপ্রেক্স পরে কক্সবাজার সদর হাসপাতালে প্রেরণ করা হয়।

এ ব্যাপারে লামা পৌরসভার ৮ নং ওয়ার্ড কাউন্সিলর মো: ইউছুপ আলী তার বক্তব্যে মারধর ও অশ্লীলতার বিষয়টি অস্বীকার করে। তিনি সাংবাদিককে জানান, পৌর বিচার বোর্ডের নির্দেশে জমির একটি সীমানা বিরোধ নিস্পত্তির জন্য সে ওই পরিবারকে কথাবার্তায় সামান্য চাপ প্রয়োগ করেন।

সে জানায়, ক্ষুদ্ধ পরিবারটি তাকে ফাঁসানোর জন্য ট্রাইব্যুনালে মনগড়া অভিযোগ করেন। এদিকে নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক, গ্রামের কয়েকজন জানান, কাউন্সিলরের পরিবার ধনে-জনে প্রভাবশালী হওয়ায়, তাদের কাছে নিরীহ মানুষগুলো অনেকটা জিম্মি হয়ে আছে। ঘটনার নিরপেক্ষ তদন্ত দাবী করেছেন গ্রামবাসীরা।

সংবাদটি শেয়ার করুন

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

এ জাতীয় আরো সংবাদ
এই পোর্টালের কোনো খেলা বা ছবি ব্যাবহার দন্ডনীয় অপরাধ।
কারিগরি সহযোগিতায়: ইন্টাঃ আইটি বাজার
iitbazar.com