• শনিবার, ০২ মার্চ ২০২৪, ০৬:০৪ পূর্বাহ্ন
শিরোনাম
মাটিরাঙায় জাতীয় বীমা দিবস উদযাপন জাতীয় বীমা দিবসে মানিকছড়িতে শোভাযাত্রা ও আলোচনা সভা ১নং কবাখালী সপ্রাবিতে পুরস্কার বিতরণ ও সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠান এনায়েতপুরে মেয়েকে ইভটিজিং এর প্রতিবাদ করায় সাংবাদিককে মারধর, কিশোর গ্যাংয়ের লিডার সহ ৪ জন আটক বাঘাইহাট দারুল আরকাম ইবতেদায়ি মাদ্রাসার শিক্ষার্থীদের মাঝে পোশাক ও বার্ষিক ক্রীড়া পুরস্কার বিতরণ অনুষ্ঠিত গুইমারাতে সেনাবাহিনীর মানবিক সহায়তা প্রদান কোস্ট গার্ড পশ্চিম জোনের বিনামূল্যে চিকিৎসা সেবা ও ঔষধ বিতরণ আলীকদমে একুশে বই মেলায় বীর বাহাদুর এমপি রাঙামাটি শহরে ছিনতাইএ জড়িত তিন চাকমা যুবক আটক ভারতের রাজস্থানের আইসিইউতে ধর্ষণে শিকার তরুণী

বান্দরবানে জলবায়ু ধর্মঘট পালন করেছে ইয়ুথ নেট

আসিফ ইকবাল, বান্দরবান: / ৬৪ জন পড়েছেন
প্রকাশিত : শুক্রবার, ১৫ সেপ্টেম্বর, ২০২৩

আসিফ ইকবাল 

ক্ষতিকর জীবাশ্ম জ্বালানির ব্যবহার বন্ধ ও নবায়নযোগ্য জ্বালানি প্রসারের দাবিতে বৈশ্বিক জলবায়ু ধর্মঘট পালন করেছে বান্দরবানের তরুণ জলবায়ু কর্মীরা।

আজ ১৫ ই সেপ্টেম্বর, রোজ: শুক্রবার ইয়ুথনেট বান্দরবান টিম এর সমন্বয়কারী সাজ্জাদ হোছাইন এর নির্দেশনায় জেলা সদরের পৌরসভা সংলগ্ন সাঙ্গু নদীর তীরের ইয়ুথনেট ফর ক্লাইমেট জাস্টিসের উদ্যোগে এ কর্মসূচি পালিত হয়।

এসময় জীবাশ্ম জ্বালানিতে অর্থায়ন বন্ধ এবং জীবাশ্ম জ্বালানি বিশেষ করে এলএনজি আমদানির ওপর দেশের নির্ভরতা কমানোর দাবি জানান জলবায়ুকর্মীরা।

পাশাপাশি জীবাশ্ম জ্বালানি থেকে নবায়নযোগ্য বিদ্যুতে রূপান্তর প্রক্রিয়া ন্যায্যতা ও মানবাধিকার বজায় রাখার দাবিও জানানো হয়। কর্মসূচিতে নানা ধরণের দাবি সম্বলিত প্ল্যাকার্ড হাতে তরুণরা অংশ নেন।

সুইডেনের জলবায়ুকর্মী গ্রেটা থুনবার্গের গড়ে তোলা স্কুলশিক্ষার্থীদের পরিচালিত আন্দোলন ‘ফ্রাইডেস ফর ফিউচার’ এর আহ্বানে বিশ্বব্যাপী এ জলবায়ু ধর্মঘট পালিত হচ্ছে।

এসময় বক্তব্য রাখেন ইয়ুথনেট ফর ক্লাইমেট জাস্টিসের সাবেক জেলা সমন্বয়ক আসিফ ইকবাল, সহকারী সমন্বয়ক জসীম উদ্দিন। এছাড়া আরও উপস্থিত ছিলেন উক্ত সংগঠনের সদস্য আবদুল আলিম, মনজিলা ইয়াসমিন, হাবীব আল মাহমুদ, জান্নাতুল মাওয়া শিফা, দয়ীতা ভট্টাচার্য, জয়ীতা দাশ, রুমানা আক্তার, তৌসিফ দায়ান সহ অন্যান্য সদস্যবৃন্দ।

তরুণ জলবায়ুকর্মীরা বলেন, জলবায়ু পরিবর্তনের বিপর্যয়কর প্রভাবের কারণে বিশ্ব এখন একটি সংকটপূর্ণ সময় পার করছে। উন্নত দেশগুলোকে প্যারিস জলবায়ু চুক্তি মেনে বৈশ্বিক তাপমাত্রা বৃদ্ধি ১.৫ ডিগ্রিতে সীমাবদ্ধ রাখতে হবে। পাশাপাশি বহুজাতিক প্রতিষ্ঠানগুলোকে জীবাশ্ম জ্বালানি ব্যবসায় বিনিয়োগ না করে কার্বন নিঃসরণ হ্রাসে এখনই উদ্যোগী হতে হবে। সরকার এবং বিনিয়োগকারীদের অবশ্যই ক্ষতিকারক জীবাশ্ম জ্বালানি ব্যবহার করে জলবায়ু বিধ্বংসী কার্যকলাপের জন্য দায় নিতে হবে। পাশাপাশি জীবাশ্ম জ্বালানি থেকে সরে এসে অবিলম্বে উল্লেখযোগ্যভাবে নবায়নযোগ্য জ্বালানির ব্যবহার বাড়াতে হবে। কারণ জীবাশ্ম জ্বালানির যুগ শেষ হয়ে গেছে।


আপনার মতামত লিখুন :

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

এ জাতীয় আরো সংবাদ