• রবিবার, ১৬ জুন ২০২৪, ০৬:০৮ পূর্বাহ্ন
শিরোনাম
ঈদ উপলক্ষে হরিহরনগর ইউনিয়ন পরিষদে ভিজিএফের চাল বিতরণ বাগেরহাটে বেআইনীভাবে প্রস্তুত হচ্ছে শামুকের খোলস পুড়িয়ে চুন ২ এপিবিএন, মেঘলা, বান্দরবান কর্তৃক একজন মাদক ব্যবসায়ী গ্রেফতার দেশ সেরা এটিও কাপ্তাইয়ের আশীষ কুমার আচার্য্য বাকী আছে ১দিন-গরু বাজারে ভীড় ক্রেতা ও বিক্রেতার শার্শা বেনাপোল বন্দরের ৫ দিন বন্ধ থাকবে আমদানি-রপ্তানি মোংলায় দিন দুপুরে দোকান ঘর ভাংচুর ও জবর দখলের চেষ্টা লংগদুতে বজ্রপাতে নিহত ৪ নিখোঁজ ১ মহালছড়ি সেনা জোনের উদ্যোগে ঈদ উপহার সামগ্রী বিতরণ মাটিরাঙায় সেনাবাহিনীর বিশেষ মানবিক সহায়তা কাপ্তাই শিল্প এলাকা হতে উদ্ধার ১২ টি পান কৌড়ি  শেখ রা‌সেল এভিয়ারী এন্ড ইকো-পার্কে হস্তান্তর  আসছে সামনে ঈদুল আযহা উপলক্ষে কোরবানির গরুর হাট

ডা. শাহিনের প্রচেষ্টায় খুলনা বিভাগে প্রথম মোংলা উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্স

আলী আজীম, মোংলা (বাগেরহাট): / ২০৯ জন পড়েছেন
প্রকাশিত : শুক্রবার, ২৬ এপ্রিল, ২০২৪

আলী আজীম, মোংলা (বাগেরহাট):

স্বাস্থ্য অধিদপ্তরের আওতায় স্বাস্থ্য ব্যবস্থা শক্তিশালীকরণ (হেলথ সিস্টেমস স্ট্রেংদেনিং-এইচএসএস) ফেব্রুয়ারি-২০২৪ রেটিংসে সারা দেশের মধ্যে একাদশ স্থান অর্জন করলো মোংলা উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্স। এর মধ্য দিয়ে এবারই প্রথম খুলনা বিভাগে বাগেরহাট জেলার মোংলা উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্স প্রথম স্থানে উঠলো। ২০২৩ সালের ফেব্রুয়ারিতে এর অবস্থান ছিলো খুলনা বিভাগে ১৭তম এবং সারা বাংলাদেশে ১২৯তম।

স্বাস্থ্য মন্ত্রণালয় ও অধিদপ্তর সারাদেশে উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সগুলোকে বিভিন্ন ইনডিকেটর বা পরিমাপক দ্বারা পর্যালোচনা করে স্বাস্থ্য অধিদপ্তরের আওতায় স্বাস্থ্য ব্যবস্থা শক্তিশালীকরণ (এইচএসএস) রেটিংসে স্কোরের মাধ্যমে র‌্যাংকিং করে থাকেন।

উপজেলা স্বাস্থ্য ও পরিবার পরিকল্পনা কর্মকর্তা ডা. মো. শাহিন বিষয়টি নিশ্চিত করে জানান, হাসপাতালটি প্রতিষ্ঠার পর থেকে এমন সাফল্য এবারই প্রথম। প্রয়োজনের তুলনায় কম জনবল ও করোনা পরিস্থিতির মাঝেও আন্তরিকতার সঙ্গে সেবা কার্যক্রম চালিয়ে যাওয়া এবং হাসপাতালের সবার আন্তরিক প্রচেষ্টার ফলেই এ সাফল্য অর্জন সম্ভব হয়েছে।

এই সাফল্যে স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সের সবাইকে অভিনন্দন ও শুভেচ্ছা জানান সংসদ সদস্য বেগম হাবিবুন নাহার, উপজেলা চেয়ারম্যান আবু তাহের হাওলাদার ও উপজেলা নির্বাহী অফিসার নিশাত তামান্না, সহকারী কমিশনার (ভুমি) মো. তারিকুল ইসলাম। সাফল্যের এ ধারা অব্যাহত রাখতে উপজেলা প্রশাসন থেকে সর্বাত্মক সহযোগিতার আশ্বাসও দেন তারা।

জানা যায়, ১৯৯৭ সালের ২৩ মে ৩১ শয্যার এ হাসপাতালটি চালু হয়। এরপর ২০০৭ সালে ৫০ শয্যায় উন্নীত হয় সরকারি এ হাসপাতাল। হাসপাতাল চালুর পর ২০২৩ সালের ১লা জুন বর্তমান উপজেলা স্বাস্থ্য ও পরিবার পরিকল্পনা কর্মকর্তা ডা. মো. শাহীন’র তত্ত্বাবধানে এখানে অপারেশন থিয়েটারটি চালু হয়। এরপর থেকে প্রতি সপ্তাহের সোমবার নিয়মিত বিভিন্ন ধরনের অপারেশন সেবা চালু রয়েছে।

৫০ শয্যা বিশিষ্ট এ স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে ২৮ জন চিকিৎসক থাকার কথা থাকলেও কর্মরত মাত্র ৮ জন। যে কারণে উপজেলার বিপুল সংখ্যক জনগোষ্ঠির চিকিৎসাসেবা নিশ্চিত করতে হিমসিম খেতে হচ্ছে চিকিৎসকদের। এই স্বল্প সংখ্যক চিকিৎসক প্রতিনিয়ত তাদের নিয়মিত ডিউটির বাহিরে গিয়েও আন্তরিকতার সঙ্গে অতিরিক্ত ডিউটি করে উপজেলার দূর-দূরান্ত থেকে আসা প্রতিদিন সকল জনসাধারণকে নিরলসভাবে সেবা দিয়ে যাচ্ছেন।

মোংলা উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সের উপ-সহকারী কমিউনিটি মেডিকেল অফিসার ডা. প্রকাশ কুমার দাশ জানান, ২০২২ সালের ১লা সেপ্টেম্বর ডা. মো. শাহিন এ হাসপাতালের যোগদান করার পর চিকিৎসা সেবার মান বৃদ্ধির পাশাপাশি হাসপাতালকে দৃষ্টিনন্দন করে তোলার জন্য উদ্যোগ গ্রহণ করেন। অল্প সময়ের মধ্যে পরিস্কার পরিচ্ছন্নতায় হাসপাতালের চারপাশ হয়ে উঠে সবুজের সমারোহ।

পর্যবেক্ষক মহলের মতে, উপজেলা স্বাস্থ্য ও পরিবার পরিকল্পনা কর্মকর্তা ডা. মো. শাহিন মোংলার এই হাসপাতালকে এক অনন্য উচ্চতায় নিয়ে গেছেন। সেই সাফল্যে তিনি অব্যাহত রেখেছেন। ডা. শাহিন নানাভাবে জাতীয় পর্যায়ে মোংলার এ হাসপাতালকে তুলে ধরছেন। প্রতিটি স্বাস্থ্যকর্মীর মুখে উচ্চারিত হয় ডা. শাহিনের নাম। তার যোগ্য নেতৃত্বে স্বাস্থ্যবিভাগ দিনে দিনে এগিয়ে চলছে।

হাসপাতালের প্রধান ডা. মো. শাহিন ও হাসপাতালের চিকিৎসক, নার্স, টেকনিশিয়ানসহ প্রতিটি কর্মীর সম্মিলিত প্রয়াসেই হাসপাতালের একটি উন্নত পরিবেশ ও সেবার মান সকলের নজরে আসে। সুধীমহলের মতে, সত্যিকার অর্থেই ডা. মো. শাহিন স্বাস্থ্যবিভাগের উন্নয়নের কারিগর।

তাঁর যোগ্য নেতৃত্বে স্বাস্থ্যবিভাগ দিনে দিনে এগিয়ে চলেছে। মোংলা উপজেলা স্বাস্থ্য বিভাগ নারী স্বাস্থ্যরক্ষায় অগ্রণী ভূমিকা পালন করে সারাদেশে আলোড়ন সৃষ্টি করেছে। গ্রাম ও শহরের মানুষের আস্থা অর্জন করেছে ডা. মো. শাহিন। নারীদের যে কোন সমস্যায় মোংলা উপজেলা স্বাস্থ্য আস্থার প্রতীক।

গর্ভবতী গৃহবধূ মর্জিনা বেগম বলেন, মোংলা উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্স পরিস্কার ও পরিচ্ছন্ন। চিকিৎসকরাও আন্তরিকতার সঙ্গে সাধ্যমত হাসিমুখে সব সেবা দেন। এখানে সিজারিয়ান অপারেশনের ব্যবস্থাসহ স্বাভাবিক ডেলিভারির ব্যবস্থা বেশ ভাল।

সেবা নিতে আসা উপজেলার সীতা রানী বলেন, হাসপাতালে চিকিৎসা সেবার মান বৃদ্ধি, পরিস্কার পরিচ্ছন্নতা, বিনামূল্যে পর্যাপ্ত ওষুধ সরবরাহের কারণে সরকারি এ হাসপাতাল সম্পর্কে মানুষের আস্থা বেড়েছে। তবে চিকিৎসকের শূন্য পদ পূরণ করা হলে আরও ভালো সেবা পেত এলাকাবাসী।

উপজেলা স্বাস্থ্য ও পরিবার পরিকল্পনা কর্মকর্তা ডা. মো. শাহিন বলেন, প্রথম বারের মতো খুলনা বিভাগে শ্রেষ্ঠত্ব অর্জনের পাশাপাশি, স্বাস্থ্যসেবা জনগণের দোরগোড়ায় পৌঁছে দিতে সারা দেশে সফলতার প্রমাণ দিয়েছে মোংলা উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্স। এ বিজয় মোংলাবাসীর। মোংলা উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সের সকল কর্মকর্তা-কর্মচারীর অক্লান্ত পরিশ্রমের ফল এটি। এর ধারাবাহিকতা ধরে রাখতে সবার সহযোগিতায় স্বাস্থ্যসেবা দেওয়া হচ্ছে।

২০২২ সালের সেপ্টেম্বর মাসে উপজেলা স্বাস্থ্য ও পরিবার-পরিকল্পনা কর্মকর্তা হিসেবে যোগদানের পর থেকে, স্থানীয় এলাকাবাসী ও জনগোষ্ঠীর মৌলিক অধিকার স্বাস্থ্যসেবা নিশ্চিত করার লক্ষ্যে স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সের সকল কর্মকর্তা-কর্মচারী সমন্বয়ে গঠিত চিকিৎসক দল একযোগে চেষ্টা চালানো হচ্ছে। তার ধারাবাহিকতায় এ সফলতা পেয়েছি।খুলনা বিভাগে মোংলা উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্স এইচএসএস স্কোরিং এবার প্রথম স্থান অধিকার করেছে।

মোংলা উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্স খুলনা বিভাগে প্রথম স্থান অর্জন হওয়ায় ইউএইচও সহ সকল চিকিৎসক, নার্স ও কর্মকর্তাদের অভিনন্দন জানিয়ে বলেন, আগামীতেও এ সাফল্য ধরে রাখার পাশাপাশি এলাকাবাসীকে সাধ্যমতো উন্নত চিকিৎসাসেবা দানের জন্য তিনি তাগিদ দেন।

 


আপনার মতামত লিখুন :

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

এ জাতীয় আরো সংবাদ