• রবিবার, ১৬ জুন ২০২৪, ০৪:০০ অপরাহ্ন
শিরোনাম
ঈদ উপলক্ষে হরিহরনগর ইউনিয়ন পরিষদে ভিজিএফের চাল বিতরণ বাগেরহাটে বেআইনীভাবে প্রস্তুত হচ্ছে শামুকের খোলস পুড়িয়ে চুন ২ এপিবিএন, মেঘলা, বান্দরবান কর্তৃক একজন মাদক ব্যবসায়ী গ্রেফতার দেশ সেরা এটিও কাপ্তাইয়ের আশীষ কুমার আচার্য্য বাকী আছে ১দিন-গরু বাজারে ভীড় ক্রেতা ও বিক্রেতার শার্শা বেনাপোল বন্দরের ৫ দিন বন্ধ থাকবে আমদানি-রপ্তানি মোংলায় দিন দুপুরে দোকান ঘর ভাংচুর ও জবর দখলের চেষ্টা লংগদুতে বজ্রপাতে নিহত ৪ নিখোঁজ ১ মহালছড়ি সেনা জোনের উদ্যোগে ঈদ উপহার সামগ্রী বিতরণ মাটিরাঙায় সেনাবাহিনীর বিশেষ মানবিক সহায়তা কাপ্তাই শিল্প এলাকা হতে উদ্ধার ১২ টি পান কৌড়ি  শেখ রা‌সেল এভিয়ারী এন্ড ইকো-পার্কে হস্তান্তর  আসছে সামনে ঈদুল আযহা উপলক্ষে কোরবানির গরুর হাট

রুমা সোনালী ব্যাংক লুট: এখনো খোঁজ মিলেনি অপহৃত ব্যাংক ম্যানাজার নিজাম উদ্দিনের

মোহাম্মদ রফিকুল ইসলাম, ব্যুরো প্রধান বান্দরবান: / ৮৪১ জন পড়েছেন
প্রকাশিত : বুধবার, ৩ এপ্রিল, ২০২৪

 

মোহাম্মদ রফিকুল ইসলাম, ব্যুরো প্রধান, বান্দরবান

বান্দরবানের রুমায় সোনালী ব্যাংকে হামলা ও লুটপাটের পর ওই এলাকায় এখন থমথমে অবস্থা বিরাজ করছে। আতঙ্ক উৎকণ্ঠায় দিন কাটাচ্ছে রুমা উপজেলা সরকারি কর্মকর্তা-কর্মচারীরা। সেখানে সেনাবাহিনী ও পুলিশের টহল বাড়িয়ে নিরাপত্তা জোরদার করা হয়েছে। এখনো খোঁজ মেলেনি সোনালী ব্যাংকের অপহৃত ম্যানেজার নিজাম উদ্দিনের। তাকে উদ্ধারে নিরাপত্তা বাহিনী সেখানে অভিযান জোরদার করেছে।

মঙ্গলবার রাত ৯ টার দিকে কুকি চিন ন্যাশনাল ফ্রন্ট কেএনএফ এর ৫০ থেকে ৬০জনের একটি সশস্ত্র দল উপজেলা কমপ্লেক্স ঘেরাও করে সেখানে পাশে থাকা সোনালী ব্যাংকে লুটপাট চালায়। সোনালী ব্যাংকের নিরাপত্তায় নিয়োজিত পুলিশ এবং আনসার বাহিনীর ১৪ টি অস্ত্র ও ৪১৫ রাউন্ড গুলি তারা লুট করে নিয়ে যায়। এ সময় ব্যাংকের ম্যানেজার নিজাম উদ্দিনকে অপহরণ করে নিয়ে যায় তারা। মারধর করা হয় কর্মকর্তা-কর্মচারীদের।

এ সময় সন্ত্রাসীরা সোনালী ব্যাংকের ভোল্টটি ভাঙচুর করে। ব্যাংকের ঐ ভল্টটিতে ১ কোটি ৬৫ লক্ষ টাকা ছিল। ওই টাকা সন্ত্রাসীরা লুট করে নিয়েছে কিনা এ বিষয়ে সিআইডির একটি তদন্ত টিম তা পরীক্ষা করে দেখছে।

এদিকে রুমা উপজেলায় এ ঘটনার পর সকালে ঘটনাস্থল পরিদর্শন করেছেন বান্দরবানের জেলা প্রশাসক শাহ মুজাহিদ উদ্দিন, চট্টগ্রাম পুলিশের অতিরিক্ত ডিআইজি মাহফুজুর রহমান বান্দরবানের পুলিশ সুপার মোঃ সৈকত শাহীন সহ প্রশাসন এবং নিরাপত্তা বাহিনীর ঊর্ধ্বতন কর্মকর্তা।

উপজেলা কমপ্লেক্সে নিরাপত্তা বাড়ানো হয়েছে। সেই সাথে বান্দরবানের প্রতিটি ব্যাংক এবং এটিএম বুথেও নিরাপত্তা বাড়ানো হয়েছে। এদিকে অপহৃত ব্যাংক ম্যানেজারের মুক্তি চেয়ে রুমা উপজেলার সরকারি কর্মকর্তা-কর্মচারীরা মানববন্ধন করেছে। অন্যদিকে রুমা উপজেলার সাথে বান্দরবান সদরের সব ধরনের যান চলাচল বন্ধ রয়েছে।

উল্লেখ্য পাহাড়ে নতুন গজিয়ে ওঠা সশস্ত্র সংগঠন কুকিচিন ন্যাশনাল ফ্রন্ট কেএনএফ এর তৎপরতা কমিয়ে আনতে গত ৫ই মার্চ শান্তি কমিটির সাথে সমঝোতা বৈঠক অনুষ্ঠিত হয়েছে। এই বৈঠকের মাত্র এক মাসের মাথায় এ সংগঠনটি ব্যাংকে হানা দিয়ে লুটপাট চালায়। সংগঠনটির বিরুদ্ধে চাঁদাবাজি ও সন্ত্রাসী কর্মকাণ্ড চালানোর অভিযোগ রয়েছে। ব্যাংকে হামলার পর চলমান শান্তি আলোচনা প্রশ্নবিদ্ধ হয়ে পড়েছে বলে স্থানীয় মনে করছেন।


আপনার মতামত লিখুন :

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

এ জাতীয় আরো সংবাদ