• শনিবার, ২০ এপ্রিল ২০২৪, ০১:৩২ অপরাহ্ন
শিরোনাম
মহালছড়িতে বৈসাবি ফুটবল টুর্নামেন্টে অংম্রাং ক্লাব চ্যাম্পিয়ন বান্দরবানে জলবায়ু ধর্মঘট করেছে ইয়ুথনেট বান্দরবানে যৌথ অভিযানে গণগ্রেফতার ও হয়রানির প্রতিবাদে খাগড়াছড়িতে পিসিপির বিক্ষোভ মিছিল মানিকছড়িতে সাংগ্রাই উপলক্ষে ঐতিহ্যবাহী বলি খেলা অনুষ্ঠিত সামাজিক অনুষ্ঠানে প্রার্থীদের সবর উপস্থিতি অসাম্প্রদায়িক ও স্মার্ট জনপদ গড়ার অঙ্গীকার তীব্র দাবদাহ বিদ্যুৎ বিভ্রাট পোল্ট্রি খামারে হাঁসফাঁস অবস্থা! খাগড়াছড়ি পার্বত্য চট্টগ্রাম নাগরিক পরিষদের সম্মেলন ২০ এপ্রিল ব্যাংকে হামলা: ১৮ নারীসহ ৫৩ কেএনএফ সন্ত্রাসীর রিমান্ড মঞ্জুর মানিকছড়িতে মোবাইল কোর্টে জরিমানা নতুন বাজার আনন্দ মেলা খেলার মাঠে গোলবার প্রদান করলেন কাপ্তাই সেনা জোন

লংগদুতে ইঞ্জিনের সাথে স্কাফ পেচিয়ে শিশুর মৃত্যু

মোঃ আলমগীর হোসেন, লংগদু (রাঙামাটি) প্রতিনিধিঃ / ১৬২ জন পড়েছেন
প্রকাশিত : শনিবার, ১৮ ফেব্রুয়ারী, ২০২৩

রাঙ্গামাটির লংগদু উপজেলায় ইঞ্জিন চালিত বোটের মেশিনের সাথে স্কাফ পেচিয়ে মোসাঃ ইকরা (০৮) শিশুর মৃত্যু হয়েছে।

শনিবার ( ১৮ ফেব্রুয়ারি) সকাল আনুমানিক পৌনে আটটায় বাড়ি থেকে মাদ্রাসায় যাওয়ার উদ্দেশ্য প্রতিদিনের ন্যায় ইঞ্জিন চালিত টলার বোটে যাত্রা শুরু করে, সাতটা পঞ্চাশ মিনিটে ঝর্ণাটিলা গোরস্তানের পাশাপাশি স্থানে গেলে উক্ত দুর্ঘটনা ঘটে বলে জানা যায়।

ইকরা লংগদু সদর ইউনিয়নের ঝর্ণাটিলা প্রবাসী নুর মোহাম্মদের মেয়ে। স্থানীয়রা এবং বোট চালক (ইমাম) আবু বকর জানায়, শিশু ইকরা (০৮) ইঞ্জিনের পাশে বসা ছিলো, হঠাৎ ইকরা দুলতে দুলতে ইন্জিনের উপর পড়ে যায়,তখন স্কাফ ইঞ্জিনের চাকার সাথে পেচিয়ে যায়, সাথে সাথে ইঞ্জিন বন্ধ করে, পাশের এক বাড়ি থেকে কাঁচি নিয়ে স্কাফ কেটে তাকে উদ্ধার করে লংগদু সদর হাসপাতালে গেলে লংগদু সদর হাসপাতেলের কর্তব্যরত চিকিৎসক আফজাল হোসেন বলেন, শিশুটিকে যখন হাসপাতলে নিয়ে আসে, তখন আমরা পরীক্ষা নিরীক্ষা করে দেখি সে মৃত। আমরা মৃত ঘোষণা করলে তারা শিশুটিকে নিয়ে ফেরত চলে যায়।

লংগদু থানার অফিসার ইনচার্জ মোহাম্মদ ইকবাল উদ্দীন বিষয়টি নিশ্চিত করে বলেন, খবর পেয়ে আমরা লংগদু থানা ফোর্স ঘটনা স্থলে পৌঁছি, বর্তমানে তদন্ত প্রক্রিয়াধীন আছে, অভিযোগের ভিত্তিতেই আমরা আইনগত ব্যবস্থা গ্রহণ করবো।

উল্লেখ্য শিশু ইকরা স্থানীয় হেডম্যান টিলা দারুল কোরআন ইসলামিয়া মাদ্রাসার তৃতীয় শ্রেণীর ছাত্রী ছিলো, একই মাদ্রাসার হুজুর (ইমাম) আবু বকর তিন বছর যাবত প্রতিদিন নিজে বোট চালিয়ে ঐ এলাকার শিশুদের নিয়ে মাদ্রাসায় যেতেনে। তারই ধারাবাহিকতায় আজও রওয়ানা করে মাদ্রাসার উদ্দেশ্য, পথিমধ্যে শিশুটি দুলতে দুলতে ইঞ্জিনের উপর পড়ে দুর্ঘটনায় স্বীকার হয়।

এম/এস


আপনার মতামত লিখুন :

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

এ জাতীয় আরো সংবাদ