• শনিবার, ১৮ মে ২০২৪, ১২:৩৬ অপরাহ্ন
শিরোনাম
কাপ্তাই উপজেলা পরিষদ নির্বাচন: তাপদাহ উপেক্ষা করে প্রার্থীরা ছুটছেন ভোটার দোয়ারে দোয়ারে  খাগড়াছড়িতে সার্বজনীন পেনশন স্কীম নিবন্ধনে শীর্ষে মাটিরাঙা খাগড়াছড়িতে নাশকতা: বিএনপির তিন নেতা গ্রেপ্তার দীঘিনালায় আনারস প্রতিকের সমর্থনে উঠান বৈঠক গুইমারায় রাতেও চলছে সর্বজনীন পেনশন স্কিম সম্পর্কে অবহিতকরণ সভা কাপ্তাই হ্রদ ভরাট : তদন্ত করে দোষীদের খুঁজতে বলল আদালত মোংলায় ব্র্যাকের উদ্যোগে বাল্যবিয়ে প্রতিরোধে সমন্বয় সভা রামগড় তথ্য অফিসের আয়োজনে মহিলা সমাবেশ মানিকছড়ি তিনটহরী উচ্চ বিদ্যালয়ে অভিভাবক সমাবেশ গোয়ালন্দে বিআইডব্লিউটিসি’র ওজন স্কেলের সড়ক তৈরীতে অনিয়ম কাপ্তাই কর্ণফুলি নদীতে মৎস্য বিভাগের  অভিযানে ৫ হাজার মিটার কারেন্ট জাল এবং ২০ টি রিং জাল জব্দ লামায় জমি নিয়ে বিরোধে জের ধরে ১ জনকে কুপিয়ে খুন, আহত ৭

মাদারীপুরে লাউ চাষে স্বাবলম্বী হয়েছেন কৃষক ফিরোজ চৌধুরী

আরিফুর রহমান মাদারীপুর / ৯৯৮ জন পড়েছেন
প্রকাশিত : বৃহস্পতিবার, ১০ সেপ্টেম্বর, ২০২০

আরিফুর রহমান মাদারীপুরঃ
লীজ নিয়ে জমিতে লাউ চাষে স্বাবলম্বী হয়েছেন মাদারীপুর সদর উপজেলার ঘটমাঝি ইউনিয়নের পূর্ব চিড়াইপাড়া গ্রামের ফিরোজ চৌধুরী।

কৃষক ফিরোজ চৌধুরী বলেন, ‘আমি অন্যত্র এক কৃষকের লাউ চাষের ক্ষেত দেখে লাউ চাষে খুব আগ্রহী হই। পরে আমি আমার প্রতিবেশী এক ভাইয়ের ২০ শতক খালি জমি লীজ নিয়ে লাউ চাষ শুরু করি। বিগত ৫ বছর যাবত আমি এই লাউ চাষ করছি। চলতি বছর খরিপ মৌসুমে ১০ হাজার টাকা খরচ করে ইতিমধ্যে ১০ হাজার টাকার লাউ বিক্রি করেছি। আমি আশাকরি আরো ৪০ হাজার টাকার লাউ বিক্রি করতে পারবো।

তিনি আরো বলেন, ‘এই পর্যন্ত লাউ চাষে ও করোনায় সরকারের কোন সহযোগিতা আমি পাই নি। এমনকি করোনায় আমার কৃষি কাজে ব্যাপক ক্ষয়ক্ষতি হয়েছে। ভবিষ্যতে সরকারের সহযোগিতা পেলে আরো বড় আকারে লাউ চাষ সহ অন্যান্য সবচি চাষ করবো।

এ বিষয়ে তার স্ত্রী তানজিলা বেগম বলেন, আমার স্বামী এই লাউ চাষের বীজ এনে দিছে। আমি তার সাথে থেকে তাকে লাউ চাষে সহযোগিতা করেছি। আমার পরিবারে ৫জন সদস্য। আমি আমার পরিবারের সদস্য নিয়ে ভাল আছি।

প্রতিবেশী জুলাই চৌধুরী বলেন, ‘লাউ একটি সুস্বাদু সবজি। ফিরোজ চৌধুরী লাউ চাষ করায় অনেক উপকার হয়েছে। কম দামে যখন তখন তাজা এই লাউ ক্রয় করে খেতে পারি। আমাদের বাজারে যেতে হয় না।

মাদারীপুর জেলা কৃষি সম্প্রসাধরণ অধিদপ্তরের উপ পরিচালক মোহাম্মদ মোয়াজ্জেম হোসেন বলেন, মাদারীপুর জেলা ব্যাপকভাবে সবজি আবাদ হয়ে থাকে। এবছর হঠাৎ করে আকস্মিক বন্যায় বেশ ক্ষতি হয়েছে। আমরা আগাম চাষি ভাইদের সবজি বীজ, সার, প্রশিক্ষণ ও পরামর্শ দেওয়ার জন্য পরিকল্পনা হাতে নিয়েছি।


আপনার মতামত লিখুন :

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

এ জাতীয় আরো সংবাদ