• রবিবার, ২১ এপ্রিল ২০২৪, ০৫:৩৮ পূর্বাহ্ন
শিরোনাম
শান্তি চুক্তির ৬৫টি ধারা সম্পূর্ণভাবে বাস্তবায়িত হয়েছে- জাতিসংঘে বাংলাদেশ শান্তিচুক্তির অগ্রগতি জাতিসংঘে তুলে ধরল বাংলাদেশ পার্বত্য চট্টগ্রাম নাগরিক পরিষদের খাগড়াছড়ি জেলা সম্মেলন অনুষ্ঠিত- লোকমান সভাপতি, মাসুম রানা সম্পাদক কেএনএফ’র সন্ত্রাসী তৎপরতার প্রতিবাদ জানিয়েছে ১১টি ক্ষুদ্র নৃ-গোষ্ঠী রুমায় তুমুল গোলাগুলি আতঙ্ক, হতাহতের শঙ্কা বর্ণাঢ্য আয়োজনে পার্বত্য চট্টগ্রাম নাগরিক পরিষদের খাগড়াছড়ি জেলা সম্মেলন অনুষ্ঠিত মহালছড়িতে বৈসাবি ফুটবল টুর্নামেন্টে অংম্রাং ক্লাব চ্যাম্পিয়ন বান্দরবানে জলবায়ু ধর্মঘট করেছে ইয়ুথনেট বান্দরবানে যৌথ অভিযানে গণগ্রেফতার ও হয়রানির প্রতিবাদে খাগড়াছড়িতে পিসিপির বিক্ষোভ মিছিল মানিকছড়িতে সাংগ্রাই উপলক্ষে ঐতিহ্যবাহী বলি খেলা অনুষ্ঠিত

লামায় গাছ টানার হাতির আক্রমনে দিনমজুর নিহত, শত কৃষকের ক্ষেত নষ্ট

মোহাম্মদ রফিকুল ইসলাম, নিজস্ব সংবাদদাতা, লামা / ৫৬০ জন পড়েছেন
প্রকাশিত : শুক্রবার, ৪ মার্চ, ২০২২

লামা উপজেলার রূপসীপাড়া ইউনিয়নে গাছ টানতে আনা পালিত হাতির আক্রমনে আনিসুর রহমান (৩০) নামে এক দিনমজুরের মৃত্যু হয়েছে। শুক্রবার (০৪ মার্চ) বিকেল সাড়ে ৪টায় ইউনিয়নের দুর্গম চুমপুং মুরুং হেডম্যান পাড়াস্থ মোঃ ওমর ফারুক বাবুল এর খামারে এই ঘটনা ঘটে। নিহত দিনমজুর আনিসুর রহমান রংপুর জেলার পীরগাছা এলাকার মৃত মোঃ আলী মুন্সির ছেলে।

সাবেক মেম্বার মোঃ ওমর ফারুক বাবুল বলেন, আমার রূপসীপাড়া ইউনিয়নের ৯নং ওয়ার্ড চুমপুং মুরুং হেডম্যান পাড়াস্থ কৃষি খামার রয়েছে। আনিসুর রহমান আমার খামারে মাসিক চুক্তিতে কাজ করতো। শুক্রবার বিকেলে ক্ষেতে তামাক পাতা আনতে গেলে মালেক কোম্পানি ও চুমপুং হেডম্যান পাড়ার মাংপা মুরুং এর গাছ টানতে আনা পালিত হাতি আক্রমন চালিয়ে আমার কাজের ছেলে আসিনুর রহমান কে মেরে ফেলে। তার ক্ষতবিক্ষত লাশ উদ্ধার করে আশপাশের লোকজন আমার বাড়ির উঠানে রেখেছে। পালিত হাতির পালটি এখনো আমার খামার বাড়ির চারপাশে ঘিরে রেখেছে। ঘরে আমার বৃদ্ধ মা, স্ত্রী ও সন্তানরা রয়েছে।

নাইক্ষ্যংমুখ ও চুমপুং পাড়া এলাকার স্থানীয় লোকজন জানায়, গাছ টানতে আনার পালিত হাতির পালটি গত কয়েক মাস ধরে এলাকায় তান্ডব চালাচ্ছে। হাতির পালের সাথে মালিকের পরিচালক নাই। তারা কাজ শেষে হাতি গুলোকে কোন খাবার না দিয়ে ছেড়ে দেয়। তখন হাতি গুলো মানুষের ঘর-বাড়ি, ক্ষেত খামার ও বাগান নষ্ট করে। বিষয়টি আমরা ইউপি চেয়ারম্যান ও বন বিভাগকে জানিয়েও কোন প্রতিকার পায়নি। শত শত মানুষের ঘর- বাড়ি, ক্ষেত খামার ও বাগান নষ্ট করেছে হাতি গুলো।

স্থানীয়রা আরো বলেন, এই পালিত হাতির পালে ৮/১০টি হাতি আছে। এই সব হাতি দিয়ে নির্বিচারে গাছ কাটা ও পরিবহন করানো হয়। প্রশাসককে কেন বিষয়টি জেনেও চুপ আমরা জানিনা। এই বিষয়ে জানতে হাতির মালিক মালেক কোম্পানিকে অনেকবার ফোন দিলেও তিনি ফোন রিসিভ করেনি।

এই বিষয়ে রূপসীপাড়া ইউপি চেয়ারম্যান ছাচিংপ্রæ মার্মা বলেন, নিহতের বাড়ি রংপুরে খবর দেয়া হয়েছে। এছাড়া লামা থানা ও বন বিভাগকে বিষয়টি জানানো হয়েছে। হাতির মালিককে অনেকবার বললেও তারা হাতি নিে যায়নি।

এম/এস


আপনার মতামত লিখুন :

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

এ জাতীয় আরো সংবাদ