• বুধবার, ২২ মে ২০২৪, ০৫:০২ পূর্বাহ্ন
শিরোনাম
পানছড়িতে উপজেলা পরিষদ নির্বাচনে বিজয়ী হয়েছেন যারা রাজস্থলী উপজেলা নির্বাচনঃ চেয়ারম্যান পদে বিপুল ভোটে জয়ী উবাচ মারমা লামা উপজেলা পরিষদ নির্বাচনে বিজয়ী হলেন যারা কাপ্তাই উপজেলা পরিষদ নির্বাচনে চেয়ারম্যান নাছির উদ্দীন, ভাইস চেয়ারম্যান সুইপ্রু মারমা   চোখের জলে অবসরে গেলেন শিক্ষক রবি মোহন চাকমা মাটিরাঙ্গায় বিষপানে মোটরসাইকেল চালকের মৃত্যু কাপ্তাই জাতীয় উদ্যানে ৮ ফুট লম্বা অজগর সাপ অবমুক্ত  রামগড়ে ইয়াবা ও গাঁজাসহ দুই মাদক ব্যবসায়ী আটক কাপ্তাইয়ে ষাটোর্ধ্ব অসুস্থ পিতা পুত্রের কোলে চড়ে ভোট দিতে  রাজস্থলী উপজেলায় সুষ্ঠুভাবে ভোট গ্রহণ চলছে   কাপ্তাইয়ে ভোট কেন্দ্র পরিদর্শনে রাঙামাটি জেলা প্রশাসক অত্যন্ত সুন্দর ও সুষ্ঠু পরিবেশে ভোটগ্রহণ চলছে- রাঙামাটি জেলা প্রশাসক

মাদারীপুর মুক্তিযোদ্ধা পরিবারের উপর হামলার ঘটনায় কোর্টে মামলা দায়ের

মাদারীপুর প্রতিনিধি / ৪৮৬ জন পড়েছেন
প্রকাশিত : বুধবার, ২৪ মার্চ, ২০২১

 

মাদারীপুর সদর থানার নতুন মাদারীপুর এলাকার এক মুক্তিযোদ্ধা পরিবারের উপর হামলার ঘটনায় ঘটেছে। মাদারীপুরের চীফ জুডিশিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট কোর্টে মামলা দায়ের করা করেছে মুক্তিযোদ্ধার পরিবার।
স্থানীয় ও মামলা সূত্রে জানা যায়, মাদারীপুর সদর উপজেলার বাসিন্দা হুমায়ুন (২৫) মাতুব্বর পিতাঃ পিতাঃ মৃত বীর মুক্তিযোদ্ধা আবদুল রহমান মাতুব্বর এর সাথে একই এলাকার বাসিন্দা সেলিম ফরাজির (৫০) পিতাঃ মৃত কলম ফরাজি সাথে দীর্ঘদিন ধরে জমিজমা সংক্রান্ত বিরোধ চলে আসছিল। উক্তবিরোধ কে কেন্দ্র করে গত ১৫ ই মার্চ সকালে সেলিম ফরাজি তার দলবল নিয়ে মুক্তিযোদ্ধা পরিবারের উপর হামলা চালায় ও বসতবাড়ি ভাঙচুর করে। এ সময় মুক্তিযোদ্ধার ছেলে হুমায়ুন মাতুব্বর বাধা দিতে গেলে তার গলায় গামছা পেচিয়ে শ্বাস রোধ করে মেরে ফেলার চেষ্টা করে। পরে তাকে বাঁচাতে আসলে তার বোন ডলি আক্তার, ও স্ত্রী ফাতেমাকে বাঁশের লাঠি দিয়ে পিটিয়ে জখম করে ও গর্ভবতী ভাবী সুমাইয়া বেগমের তলপেটে বাচ্চা নষ্ট করার উদ্দেশ্যে লাথি মারে। দুর্বৃত্তরা, ফলে রক্তক্ষরণ শুরু হয়। পরে হুমায়ুন মাতুব্বরের আর্তচিৎকারে এলাকাবাসী এগিয়ে আসলে তারা পালিয়ে যায়। পরবর্তীতে আহত সুমাইয়া আক্তারকে মাদারীপুর সদর হাসপাতালে ভর্তি করা হয় ও অন্য আহতরা প্রাথমিক চিকিৎসা নেয়।
ঘটনায় মুক্তিযোদ্ধার ছেলে হুমায়ুন মাতুব্বর বাদী হয়ে ৬ জনকে আসামী করে বিজ্ঞ চীফ জুডিশিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট আদালতে একটি মামলা দায়ের করে। আসামীরা হলেন একই এলাকার সেলিম ফরাজি, বেলায়েত ফরাজি, শওকত ফরাজি, শহিদ ফরাজি, ছায়াদ ফরাজি ও আলিম ফরাজি।
মুক্তিযোদ্ধার ছেলে হুমায়ুন বলে, আমার বাবা একজন প্রয়াত মুক্তিযোদ্ধা। তিনি কখনোই কারো সাথে বিরোধে ও যায় নি। কিন্তু গত ৬ মাস আগে সেলিম ফরাজি ও বেলায়েত ফরাজি দাবী করে আমাদের বসতবাড়ীর জমিটি তাদের, এই নিয়ে আদালতে একটি মামলা ও হয়, মামলার রায় আমাদের পক্ষে আসায় সেলিম ফরাজি ও তার অনুসারীরা ক্ষিপ্ত হয়ে আমার পরিবারের উপর এমন হামলা চালায়, আমার গর্ভবতী ভাবীকে ও ওরা ছাড় দেয় নি। এই ঘটনার সাথে জড়িত আসামীদের সঠিক বিচার চাই।


আপনার মতামত লিখুন :

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

এ জাতীয় আরো সংবাদ