মঙ্গলবার, ০৬ ডিসেম্বর ২০২২, ০৬:২৯ পূর্বাহ্ন
বিজ্ঞপ্তিঃ

হ্যাঁ, এলাকা আমার, খবর আমার, পত্রিকা আমার। সাফল্যের ২ বছর শেষে ৩ তম বছরে দৈনিক পার্বত্য কন্ঠ। নতুন বাংলাদেশ গড়ার প্রত্যয়ে সবচেয়ে বেশি স্থানীয় সংস্করন নিয়ে "দৈনিক পার্বত্য কন্ঠ" বিশ্লেষন আমাদের, সিদ্ধান্ত আপনার। দৈনিক পার্বত্য কন্ঠ পত্রিকায় শুন্য পদে সংবাদদাতা নিয়োগ চলছে। আপনার এলাকায় শুন্য পদ রয়েছে কিনা জানতে কল করুনঃ 01647627526 অথবা ইনবক্স করুন আমাদের পেইজে। ভিজিট করুনঃ parbattakantho.com দৈনিক পার্বত্য কন্ঠ। সত্য প্রকাশে সাহসী যোদ্ধা আমরা নতুন বাংলাদেশ গড়বো

মাগুরায় স্কুল মাঠে গরু ছাগলের হাট বন্ধে ছাত্র-ছাত্রীদের মানববন্ধন

মাগুরা প্রতিনিধিঃ
  • প্রকাশিত : বুধবার, ২৭ জুলাই, ২০২২
  • ১০৪ জন পড়েছেন

মাগুরা সদর উপজেলার কাটাখালী মাধ্যমিক বিদ্যালয়ে গরু ছাগলের হাট বন্ধে ছাত্র-ছাত্রীরা মানববন্ধনের আয়োজন করে। বুধবার ২৭ জুলাই বেলা ১২ টার সময় বিদ্যালয় মাঠ প্রাঙ্গনে তারা এ মানববন্ধন করে, এই মানববন্ধনে বিদ্যালয়ের প্রায় ৪০০ শত জন ছাত্রছাত্রী অংশ গ্রহন করে। ছাত্র ছাত্রীবৃন্দ গণ জানায়, আমাদের এ স্কুলে গরু ছাগলের হাট বসে এর কারণে কাঁদা, গোবর, গরু ছাগলের মূত্র ও বৃষ্টির পানির কারণে মাঠে চলাচলের অনুপযোগী, আর মাঠের কোন জায়গায় একবিন্দু পরিমাণ জমিতে ঘাস নেই, খেলা ধুলা করার কোন সুযোগ নাই। প্রতি সপ্তাহের বুধবারের দিন হাটের জন্য স্কুল বন্ধ থাকে এবং বৃহস্পতিবারে হাফ স্কুল চলে এতে করে আমাদের পড়াশোনার মারাত্বক ক্ষতি হয়, যে কারনে এ স্কুলের দূর্ণাম বয়ে আসতেছে, স্বাধীনতার পরে ভাল রেজাল্ট করতে পারে না স্কুলটি। এসময় হাট মালিক পক্ষ ব্যাপারীদের দিয়ে স্কুল মাঠে জোর করে গরু প্রবেশ করালে ছাত্রছাত্রীরা কঠোর হস্তে বাধা দেয়। এ সময় হাট মালিকের পক্ষে জাকির মোল্যার কাছে জানতে চাইলে তিনি সাংবাদিকদের প্রতি ক্ষেপে যান এবং তেড়ে বলেন তোরা সাংবাদিকরা যা পারিস তাই কর তোদের কাছে কোন তথ্য দিবোনা, তুই আকরাম সাংবাদিক তোর মতো করে লেখেনে। এবিষয়ে স্কুলের ভারপ্রাপ্ত প্রধান শিক্ষক আবু হানিফ জানান, আসলে স্কুলের মাঠে গরু ছাগলের হাট বসলে ছেলেমেয়েদের পড়াশোনার ব্যাপক ক্ষতি হচ্ছে। স্কুলে প্রতি বুধবার ও বৃহস্পতিবার তাদের বাড়ি বসে থাকতে হয়। আমরা স্কুলের লেখাপড়ার মান ফিরিয়ে আনতে চাই। তিনি আরও বলেন, কোরবানি ঈদের আগে আমি মাগুরার সব প্রশাসন দপ্তরে চিঠি পাঠিয়েছে হাট না বসার জন্য। স্কুলের কয়েকজন শিক্ষিকা বলেন, গরু ছাগলের মলমূত্র, গোবর সহ নানা ধরনের ধূলাবালি শ্রেণি পাঠদানের সময় শ্রেণীকক্ষে ঢুকে স্কুলের পরিবেশের ভারসাম্য নষ্ট করে, এজন্য যথাসময়ে ক্লাস নেওয়া সম্ভব হয় না। আর সবচেয়ে বড় বিষয় হলো গরু ছাগলের গোবর ও মূত্রের তীব্র দূর্গন্ধ, এই দূর্গন্ধ অত্যাধিক মাঝে মধ্যে মনে হয় যেন পেটের নাড়িভুড়ি বেরিয়ে আসছে, যেটা অসহ্য আর স্কুলের ব্লিডিং ও ঘরের অবস্থা বেশ খারাপ অবস্থায় আছে। এ বিষয়ে মাগুরা সদর উপজেলার নির্বাহী অফিসার মোঃ ইয়াসিন কবীর মুঠো ফোনে জানান, হাট বিক্রি হয়েছে ঠিকই কিন্তু স্কুলের মাঠ নয়, তবে তিনি স্কুলের ম্যানেজিং কমিটি ও হাট ইজারাদের ভিতর কিভাবে চুক্তি হয়েছে কাগজ পত্র দেখে বলতে পারবেন বলে জানান। এ বিষয়ে হাট ইজারাদার বাবলু মীর দৈনিক গণকন্ঠ কে জানান, ১৯৭৩ সালের পূর্ব থেকে এই হাট কাটাখালি মাধ্যমিক বিদ্যালয়ের স্কুল মাঠে মিলিত হয়ে আসছে, তবে আমাদের কোন স্কুলের সাথে লিখিত চুক্তি হয়নি। সবশেষে বলেন, গরু, ছাগল, হাস, মুরগী ও বিভিন্ন শ্রেণির পশু পাখির জন্য খুব দ্রুত নতুন জায়গার ব্যবস্থা করার চেষ্টা করতে হবে।

এম/এস

সংবাদটি শেয়ার করুন

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

এ জাতীয় আরো সংবাদ
এই পোর্টালের কোনো খেলা বা ছবি ব্যাবহার দন্ডনীয় অপরাধ।
কারিগরি সহযোগিতায়: ইন্টাঃ আইটি বাজার
iitbazar.com