• বুধবার, ২৮ ফেব্রুয়ারী ২০২৪, ০৭:১৯ অপরাহ্ন
শিরোনাম
রাঙামাটি শহরে ছিনতাইএ জড়িত তিন চাকমা যুবক আটক ভারতের রাজস্থানের আইসিইউতে ধর্ষণে শিকার তরুণী বাঙ্গালহালিয়া পাবনাটিলা প্রাথমিক বিদ্যালয়ে শিক্ষার মনোন্নয়নে অভিভাবক সমাবেশ অনুষ্ঠিত লক্ষ্মীছড়িতে পিতার জীবদ্দশায় বেচা সম্পত্তি সন্তানের অস্বীকার! ভোগ-দখলে থাকা ক্রেতারা হতবাক পদর্শনী খামারে মৎস্য চাষীর মাঝে উপকরণ বিতরণ মাটিরাঙ্গা মিউনিসিপ্যাল মহিলা কলেজ’ প্রতিষ্ঠার উদ্যোগ রাঙামাটিতে দুইটি বসত ঘর আগুনে পুড়ে ছাই এবার বন্যহাতির আবাসস্থল ধ্বংস করে ইটভাটা ! মাদক থেকে দূরে রাখতে খেলাধুলার বিকল্প নেই- বীর বাহাদুর মানিকছড়ি ইংলিশ স্কুলে বার্ষিক ক্রীড়া ও পুরস্কার বিতরণ

মানিকছড়িতে কিশোরী ধর্ষণের ঘটনায় ৩জনকে আটক করেছে পুলিশ

আব্দুল মান্নান, স্টাফ রিপোর্টার (খাগড়াছড়ি)  / ৯৯১ জন পড়েছেন
প্রকাশিত : রবিবার, ২৯ অক্টোবর, ২০২৩

আব্দুল মান্নান, স্টাফ রিপোর্টার (খাগড়াছড়ি) 

খাগড়াছড়ির মানিকছড়ি উপজেলায় বখাটে কর্তৃক এক উপজাতি কিশোরী ধর্ষণের ঘটনায় পুলিশ ধর্ষক ও সহায়তাকারীসহ ৩জনকে আটক করেছে। এছাড়া ভিকটিমের মোবাইল ফোন ও অপরাধীদের ব্যবহৃত মোটরসাইকেলও উদ্ধার করা হয়েছে। খাগড়াছড়ি পুলিশ সুপার মুক্তা ধর প্রেস ব্রিফিংয়ে এ তথ্য নিশ্চিত করেছেন।

২৯ অক্টোবর রোববার সকাল সাড়ে ১১ টায় খাগড়াছড়ি পুলিশ সুপার মুক্তা ধর তাঁর কার্যালয়ে এক প্রেস ব্রিফিংয়ে সাংবাদিকদের ঘটনার বিবরণ ও অপরাধী আটকের তথ্য তুলে ধরে বলেন, মানিকছড়ি উপজেলার চৈক্কাবিল এলাকার থুইহলাঅং মারমার ১৯ বছর বয়সী কন্যাকে গত ২৫ অক্টোবর বিকেলে চট্টগ্রাম থেকে বাড়ি আসার পথে বাড়ির অদূরে সড়কের পাশে নির্জন জঙ্গলে তিন যুবক কর্তৃক ধর্ষণের শিকার হয়! ধর্ষিতা প্রথমে বিষয়ে গোপন রাখলেও রাতে তার মাকে বলেন, আমাকে তিন বাঙালি যুবক পথিমধ্যে ধর্ষণ করেছে! পরে ধর্ষিতা কিশোরীর পিতা গত ২৬ অক্টোবর বৃহস্পতিবার সকালে থানায় আসেন এবং অজ্ঞাতনামা তিন যুবকের বিরুদ্ধে লিখিত অভিযোগ দায়ের করেন। এর পর বিষয়টি নিয়ে পুলিশ তৎপর হয় এবং চট্টগ্রাম রেঞ্জের ডিআইজি নূরেআলম মিনার সুদক্ষ নির্দশনা ও পুলিশ সুপারের সুদৃঢ় নেতৃত্বে থানা পুলিশের একটি চৌকস দল প্রযুক্তির ব্যবহারে উপজেলার গহীন অরণ্যে লুকিয়ে থাকা ধর্ষক ও সহায়তাকারী ৩ বখাটে যুবককে পৃথক অভিযানে গত ২৮ অক্টোবর বিকেলে আটক করতে সক্ষম হয়।

পুলিশ সুপার মুক্তা ধর আরও বলেন, উপজেলার পূর্ব গচ্ছাবিল এলাকার মহর আলীর পুত্র মো. শাহ আলী(২০) তার সহযোগী একই এলাকার আবদুল মালেক ও লিয়াকত আলীর পুত্র মো. মিজানুর রহমান(২২) ও মো.হোসেন আলী(২২) কে নিয়ে ওই ভিকটিমকে ধর্ষন করে এবং ধর্ষিতার মোবাইল ফোন নিয়ে ভিডিও করেন!

মূলত ধর্ষিতার মোবাইলের সূত্র ধরেই প্রযুক্তির সহায়তায় অল্প সময়ে অপরাধীদের আইনের আওতায় আনা সম্ভব হয়েছে। আজ রোববার আদালতের মাধ্যমে অপরাধীদের জেল হাজতে প্রেরণ করা হয়েছে।


আপনার মতামত লিখুন :

One response to “মানিকছড়িতে কিশোরী ধর্ষণের ঘটনায় ৩জনকে আটক করেছে পুলিশ”

  1. Sanjoy says:

    ধর্ষণের নিউজ করবার সময় ধর্ষিতার নাম বা বাবার নাম উল্লেখ করা হয় না। অপরাধীর নাম উল্লেখ্য করা হয় শুধু। এতে ধর্ষিতা ও তার পরিবারের সামাজিক প্রবলেম হয়।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

এ জাতীয় আরো সংবাদ